Skip to content

২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | সোমবার | ১১ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আবদ্ধ কাঁথা-কম্বল-লেপ নতুন করে ব্যবহারের উপায়

শীতকালের ঠান্ডা হাওয়া বইতে শুরু করেছে। সময় এসেছে কাঁথা-কম্বল-লেপ বের করার। অনেকদিন ধরে আবদ্ধ থাকায় এতে গন্ধ বা স্যাঁতস্যাঁতে ভাব হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আবদ্ধ এবং সঠিকভাবে সংরক্ষণের অভাবে কাঁথা-কম্বল-লেপে হতে পারে দুর্গন্ধ, ভেজাভাব, তিল পড়া ছাড়াও পোকার আক্রমণ।  

 

সময় এসেছে এসব কাথা-কম্বল-লেপ রোদে দেয়ার। রোদে দিলে রোদের তাপে কাঁথা-কম্বল-লপের স্যাঁতস্যাঁতে ভাব কেটে বেশ ঝরঝরে হয়ে ওঠে। শীতের মাত্রা বেড়ে গেলে রোদের তাপও তেমন ভাবে পাওয়া যাবে না। তাই শীতের শুরুর দিকেই রোদ দিয়ে ঘরে রেখে দেয়াই ভালো। শীতের তীব্রতা বাড়লে ব্যবহার করা সহজ হয়ে যাবে। এই পদ্ধতি শুধু কাঁথা, কম্বল কিংবা লেপের জন্য নয় চাইলে পুরাতন শীতের পোষাকের ক্ষেত্রেও এই পদ্ধতি অবলম্বন করার পরামর্শ রইল। 

 

দুর্গন্ধ, ভেজাভাব দূর করতে কাঁথা, কম্বলের সাথে শীতের পোশাকও রোদ দিতে হবে। শীতের পোশাকের মধ্যে রয়েছে সোয়েটার, জ্যাকেট ইত্যাদি কাপড়গুলো ধুয়ে রোদে শুকিয়ে নিতে হবে। এখনই রোদ দিয়ে রাখলে ঠান্ডা বেশি পড়লে সহজেই হাতের কাছে পাওয়া যাবে। 

 

এ ব্যাপারে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আলো আসে এবং মানুষ চলাচল করে না এমন ঘরে পরিহিত পোশাকটি ঝুলিয়ে রাখা যেতে পারে তবে ব্যবহারের আগে ভালভাবে ঝেরে নিতে হবে।