Skip to content

৩রা মে, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ | শুক্রবার | ২০শে বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নারীর কি স্বপ্ন দেখার অধিকার নেই!

একটি পরিবারে সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হলো মা। যিনি একা হাতে পুরো সংসার সামলান। সন্তানের দেখা-শোনা, পরিবারের ছোট-বড় সব সদস্যের খেয়াল রাখা সব দিকেই নজর রাখেন। কিন্তু তিনি মা হওয়ার আগে যে একজন নারী, এটা কি আমরা ভেবে দেখি? তাঁরও যে কিছু ইচ্ছে আছে, স্বপ্ন দেখার অধিকার আছে, এটা কি কেউ ভেবেছে?

 

নারীর কি স্বপ্ন দেখার অধিকার নেই!
 

অনেকের মতে, মা তো মাই, সন্তানের খুশিতে, পরিবারের খুশিতেই মায়ের খুশি। কিন্তু এই মাই এক সময় পরিবারের খুশির জন্য নিজের সব স্বপ্ন বিসর্জন দিয়েছেন। একজন নারী কি শুধু ঘর-সংসারেই নিজের জীবন অতিবাহিত করবে, নাকি সে-ও স্বপ্ন দেখে স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে এগিয়ে যাবে? এই মা যখন নিজের স্বপ্নগুলো অপূর্ণ রেখে নিজেকে চার দেয়ালে বন্দি রাখেন, তখন একটা সময় পরে নিজের মেয়েকে যেন এই একই পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে না হয়, সেই ব্যবস্থা করেন। তাঁর মেয়েকে জীবনে ভালো কিছু করার স্বপ্ন দেখান। সেই স্বপ্ন পূরণে নিজের সবটা দিয়ে দেন।

 

তাঁর মেয়েটিও একজন নারী, তাই তাকেও সম্মুখীন হতে হয় নানা সমস্যার। পড়ালেখা করে যখন সে নিজের স্বপ্ন পূরণে এগিয়ে যায়, তখন তার স্বপ্ন পূরণের সারথি কতজন হয়?

 

নারীর নিজের পছন্দের কাজ করার অধিকার কি আছে? উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, নারী সাংবাদিকের কথা। একজন নারী সাংবাদিকতায় পড়ালেখা করছে বা সাংবাদিক হতে চায়, শুনলেই অনেকে চমকে ওঠেন। বলেন, ‘মেয়ে হয়ে সাংবাদিক হওয়ার কি প্রয়োজন, অন্যকিছু করুক।’ আবার অন্য কোনো পেশায় গেলেও এই একই কথা শুনতে হয়। যেমন, আমাদের দেশে সিভিল ইঞ্জিনিয়ার যারা আছেন, বেশির ভাগই ছেলে। তাই কোনো মেয়ে যদি সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়তে চায়, তাকে শুনতে হয় নানা কটূক্তি। একজন মেয়ে কেন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়ালেখা করতে পারবে না বা সিভিল ইঞ্জিনিয়ার হতে পারবে না!

 

নারীর কি স্বপ্ন দেখার অধিকার নেই!

 

নারীর কর্মক্ষেত্রে প্রবেশেও বাধার সম্মুখীন হতে হয় অনেক। কোনো নারী যখন কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করে, তখন তাকে সাহায্য করার পরিবর্তে চাপের মুখে রাখা হয়। এই পরিস্থিতিতে গুঁটি কয়েক মানুষই পারে নিজের স্বপ্নের দিকে অগ্রসর হতে, আর বাকিরা ঝরে পড়ে। এর অর্থ কি নারীর স্বপ্ন দেখার অধিকার নেই!

 

 

 

 

 

 

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ