Skip to content

২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | শনিবার | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আয়োজিত হল বিবি রাসেলের ‘ম্যাজিক্যাল থ্রেডস’

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ডিজাইনার বিবি রাসেলের প্রতিষ্ঠান 'বিবি প্রোডাকশনস' এবং দেশের শীর্ষস্থানীয় ফ্যাশন স্টুডিও 'হাউজ অব আহমেদ' এর আয়োজনে গত ৫ মার্চ ‘ম্যাজিকাল থ্রেডস রানওয়ে ২০২১’ অনুষ্ঠিত হয়। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে দেশীয় ফ্যাশন নিয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় রাজধানীর হোটেল রেডিসন ব্লুতে অনুষ্ঠানটি আয়োজন করা হয়।

 

বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে অনুষ্ঠিত হয় এই 'ম্যাজিক্যাল থ্রেডস রানওয়ে ২০২১'। অনুষ্ঠানে বিবি প্রডাকশন ৫০ বছরের বিভিন্ন ডিজাইন ও ট্রেন্ডের পোশাক ও গহনা তুলে ধরা হয়, যা থাকবে গ্রাম থেকে শহুরে মানুষের সাধ্যের মধ্যে।

 

অনুষ্ঠানের শুরুতেই বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমিন। তিনি বলেন, ‘‘এটি আসলে আমার সুযোগ যে আমি বিবি রাসেলের এই ম্যাজিকাল থ্রেডস প্রোগ্রামটি স্বচক্ষে দেখতে পাচ্ছি।’’ তিনি আরো বলেন, “বিশ্বের এই পরিস্থিতিতেও যে আমরা এখানে উপস্থিত হতে পেরেছি এটি আসলে সৌভাগ্যের ব্যাপার। ওয়াশিংটনে ৮০ ডলার খরচ করতে হচ্ছে ভ্যাক্সিনের জন্য, সেখানে আমরা ফ্রিতেই পাচ্ছি” 
এরপর বক্তব্য রাখেন প্রফেসর গওহর রিজভী, বিউটি এন্ড পার্সোনাল কেয়ার ইউনিলিভার বাংলাদেশ এর মার্কেটিং ডিরেক্টর আফজাল হোসেন খান, মিউচুয়াল টার্স্ট ব্যাংক এর হেদায়েতউল্লাহ রন, হোটেল রেডিসন ব্লু এর জেনারেল ম্যানেজার আলেকজান্ডার হেউসলার। 

 

টি-আকৃতির মঞ্চে  বিবি প্রডাকশনের পোশাক প্রদর্শনের পর মডেলদের সাথে মঞ্চে আসেন স্বয়ং বিবি রাসেল। অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে মঞ্চে আসে হাউজ অব আহমেদের পোশাক পরা মডেলরা। অনুষ্ঠানের কোরিয়োগ্রাফে ছিলেন নয়নিকা চ্যাটার্জি। অনুষ্ঠানের সহযোগিতায় ছিল সানসিল্ক্ক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, রেডিসন, এফবি ফুটওয়্যার ও ফারজানা শাকিল।

 

বাংলাদেশের প্রত্যন্ত তাঁতপল্লিতে গিয়ে দেশীয় বস্ত্র সংরক্ষণ ও উন্নয়নে কাজ করেছেন বিবি রাসেল। দেশীয় বস্ত্র এবং হস্তশিল্প নিয়ে কাজ করার আকাঙ্ক্ষা থেকে প্রতিষ্ঠা করেন 'বিবি প্রোডাকশনস’। দেশীয় হস্তশিল্পকে বিশ্ববাজারে পরিচয় করিয়ে দিতে ১৯৯৬ সাল থেকে তিনি 'ফ্যাশন ফর ডেভেলপমেন্ট' ধারার প্রায়োগিক চর্চাও শুরু করেন তিনি। 

 

অন্যদিকে ২০১৮ সালে তিনজন কারিগর নিয়ে হাউজ অব আহমেদ যাত্রা শুরু করে ‘হাউজ অব আহমেদ’। বর্তমানে শতাধিক দেশীয় কারিগরের হাতে তৈরি পোশাকি এর সাথে দেশীয় ঐতিহ্য নিয়ে কাজ করছে এটি।