Skip to content

২০শে ফেব্রুয়ারী, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ | মঙ্গলবার | ৭ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাত জাগলে যে খাবারগুলো খেতে পারেন

বর্তমান যুগে বেশিরভাগ মানুষই দেখা যায় অধিক রাত পর্যন্ত জেগে থাকে। কেউ বা কাজ করে, কেউ বা পড়ালেখা করে, আবার কেউ বা শুধু বিনোদনের জন্য ফোন চালায়। অনেকের আবার তাড়াতাড়ি ঘুম আসেনা তাই সময় কাটানোর জন্য ফোন বা ল্যাপটপে অবসরের কাজ করেন। আবার অনেক সংস্থাকে বাইরের দেশের সময়ের সঙ্গে মিলিয়ে কাজ করতে হয়। মোট কথা, একটি ভালো পরিসংখ্যানই রাত জেগে কাজ করে।

কিন্তু অধিক রাত জেগে থাকা ঠিক নয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, এর নানা ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে শরীরে । কারণ দীর্ঘদিন একটানা রাত জাগলে ঘুম নষ্ট হয়। তখন দিনের বেলায় পর্যাপ্ত ঘুমালেও শরীর খারাপ লাগে। এছাড়াও দীর্ঘদিন ধরে রাত জেগে কাজ করলে মেজাজ গরম, কাজে মন না লাগা এসব সমস্যা দেখা দেয়। তখন সকালে উঠে শরীরচর্চার জন্য কোনো উৎসাহও থাকে না। দিনে যতই ঘুমানো যাক না কেন রাতের একটানা নিরিবিলি ঘুমটাই শরীরের জন্য বেশি প্রয়োজন।

রাতে খাবার পর দীর্ঘ সময় ধরে কাজ করতে করতে ক্ষুধাও লাগে অনেকের। অনেকে আবার রাত জাগলে কিছুক্ষণ পরপর বিভিন্ন ধরনের খাবার খেতে থাকেন। এতে ওজন বাড়ার সম্ভাবনা বাড়ে। এছাড়া বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নানা ধরনের রোগের প্রকোপও বাড়ে। দীর্ঘদিন ধরে রাত জাগলে আবার রাতে ঘুমের অভ্যাস করাও কঠিন হয়ে পড়ে। এ কারণে রাত জাগলে খাবারের ব্যাপারে বাড়তি সতর্ক থাকা প্রয়োজন। বিশেষ করে তেল-মশলা, কফি জাতীয় খাবার ত্যাগ করা উচিত। এছাড়াও সুস্থ থাকতে খাদ্যতালিকায় কিছু খাবার যোগ করা দরকার। যেমন-

 

ফল

 

 

ফলের রস নয়, রাতে কাজ করার সময় খিদে পেলে গোটা ফল খেতে পারেন। অনেকেই ভাবেন রাতে ফল খাওয়া ঠিক নয়, কিন্তু রাতে সফেদা, শাঁখালু, আপেল, পেয়ারা, পেঁপে এসব ফল খেতে পারে। এতে পেটও ভরবে আর শরীরও ভালো থাকবে। তবে রাতে সাইট্রাস জাতীয় ফল খাওয়া ঠিক নয়। এতে গ্যাসের সমস্যা হতে পারে। ফল শরীরে পুষ্টি দেয়। এটি খেলে অনিদ্রা, হজমের সমস্যা কমে যায়।

 

 

ঘি

 

 

যাদের কোলেস্টেরল আছে তারা অবশ্যই ঘি এড়িয়ে চলুন। কিন্তু যারা সুস্থ স্বাভাবিক তারা রাতের রুটি বা ভাতে এক চামচ ঘি খেতে পারেন। ঘি শরীরকে ভেতর থেকে সুস্থ রাখে। শরীরে আর্দ্রতা বজায় রাখে। তবে ঘি এর পরিবর্তে টক দইও খেলেও শরীর সুস্থ থাকে।

 

বাদাম

 

 

রাত জেগে কাজ করার সময় খিদে পেলে কফি বা চকোলেটের পরিবর্তে কাজুবাদাম কিংবা পেস্তাবাদাম খেতে পারেন। এতে পেট ভরবে আর শরীরও ভালো থাকবে। সেই সঙ্গে ঘুমও ভালো হয়। আর কাজের মাঝে বাদাম খেলে মনও ভালো থাকে।

 

খেজুর ও খেজুরের গুড়

 

 

এখন খেজুরের গুড় পাওয়া যাচ্ছে। তাই গুড় দিয়ে রুটি খেতে পারে। তা না চাইলে শুকনো খেজুর খেতে পারেন কাজের ফাঁকে। খেজুরে শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় ভিটামিন, খনিজ থাকে। প্রতিদিন দুই থেকে তিনটি খেজুর বো খেজুরের গুড় খেলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে।

 

 

 

এছাড়াও প্রচুর পানি পান করা জরুরি। সকাল হোক বা রাত সারাদিনই পরিমাণ মতো পানি পান করা শরীরের জন্য অত্যন্ত জরুরি।

 

 

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ