Skip to content

৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | শুক্রবার | ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘আদিবাসী নারীদের সহিংসতা প্রতিরোধে এগিয়ে আসুন’ স্লোগানে সম্মেলন

দিনের পর দিন ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর নারীদের ওপর নির্যাতন ও সহিংসতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।  তবে এই নির্যাতন ও সহিংসতা কোনোটিই খুব একটা থামিয়ে রাখতে পারেনি এই নারীদের। সকল বাঁধা পেরিয়ে এগিয়ে যাওয়ার প্রচেষ্টা তাদের। 

ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর সমাজের মূল্যবোধকে এ সহিংসতা প্রতিরোধে কাজে লাগাতে হবে – বলে  আহ্বান জানানো হয় 'ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে করণীয়’ শীর্ষক জাতীয় সম্মেলনে। গতকাল সোমবার রাজধানীর আসাদগেটের সিবিসিবি সেন্টারে দুই দিনব্যাপী এ সম্মেলন শেষ হয়। 

সম্মেলনের আয়োজন করে বাংলাদেশ আদিবাসী নারী নেটওয়ার্ক এবং কাপেং ফাউন্ডেশন। ‘আদিবাসী নারীদের সহিংসতা প্রতিরোধে এগিয়ে আসুন’ এ স্লোগানে সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।  সংগঠনের আহ্বায়ক মিনু মারিয়ার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আদিবাসী নারী নেটওয়ার্কের সদস্য সচিব চঞ্চনা চাকমা, বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের কার্যকরী কমিটির সদস্য তুলি লাবণ্য, কাপেং ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক পল্লব চাকমা, বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং এবং অনলাইনে যুক্ত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন সাদেকা হালিম প্রমুখ।

বাংলাদেশ আদিবাসী নারী নেটওয়ার্কের সমন্বয়কারী ফাল্গুনী ত্রিপুরা দুই দিনের সম্মেলনে একাধিক কর্মশালা সঞ্চালনা করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সাদিকা হালিম  বলেন, প্রান্তিক নারীরা যারা কোভিডে-১৯ মহামারিতে ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর পরিবারগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তাতে দেখা যায় নারীরা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। অধিবেশন শেষ হয় এফ-মাইনরের নারী জাগরণীমূলক গানের মাধ্যমে।

সম্মেলনে জেন্ডার, নারীর অধিকার এবং ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর নারীদের অধিকার রক্ষায় জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিষয়গুলো আলোচনা হয়। সম্মেলনের সর্বশেষ অধিবেশনে সব প্রতিনিধির অংশগ্রহণে একটি কর্মকৌশল নির্ধারণ করা হয়। সেখানে  ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে কার্যকর এবং দৃষ্টান্তমূলক পদক্ষেপ নেয়ার জন্য সরকারের কাছে জোর দাবি জানানো হয়।