Skip to content

২০শে আগস্ট, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | শনিবার | ৫ই ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

অতিরিক্ত ঘুমে হতে পারে স্ট্রোক

ঘুমকাতুরে স্বভাব আছে অনেকেরই। এই সুযোগ মিললো, একটু নিরিবিলি সময়ে ঘুম এড়ানোটা কষ্টকর। বিছানায় একটু আরাম করে শুলেন, আবহাওয়াও চনমনে। ব্যস ঘুমের রাজ্যে ডুবে গেলেন। বয়োজ্যেষ্ঠরা অবশ্য বলেন, বেশি ঘুম ভালো না। কথাটা অবশ্য খুব ভুল বলেন না। এই তো কদিন আগেরই এক গবেষণা থেকে জানা গেলো, বেশি ঘুমালে নানাবিধ শারীরিক জটিলতা দেখা দিতে পারে। হতে পারে স্ট্রোকও।

এটুকু আমরা মোটামুটি জানি, একজন প্রাপ্তবয়স্কের দিনে ৮-৯ ঘণ্টা ঘুম প্রয়োজন। মূলত মস্তিষ্ক এতে খুব একটা ক্লান্ত হয় না। দিনে চার ঘণ্টা ঘুমোতে পারলেও আপনি সুস্থ থাকবেন। তবে ৮-৯ ঘণ্টাই আদর্শ। পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুমের অভাবে বদহজম, ক্লান্তি, স্মৃতিশক্তি লোপের মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে। কম ঘুম যেমন হৃদযন্ত্রের সমস্যার কারণ, বেশি ঘুমও হৃদযন্ত্র বিকলের কারণ হতে পারে। যারা দিনে ৯ ঘণ্টার বেশি ঘুমান, তাদের হৃদরোগ হওয়ার ঝুঁকি ৮৫ শতাংশ বেড়ে যায়।

সচরাচর মস্তিষ্কে রক্ত চলাচল কমে গেলে স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে। স্ট্রোকের উপসর্গ প্রথম থেকেই আন্দাজ করা সম্ভব হয় না। অনেকের ঘুমের মধ্যেও স্ট্রোক হয়। অবশ্য সাময়িক গবেষণা থেকে জানা যায় না ঘুমের সঙ্গে স্ট্রোকের সম্পর্কটা আদৌ কিভাবে সম্ভব কি না। তবে পর্যবেক্ষণ থেকে এমনটাই জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

আমরা এর সম্ভাব্য কারণগুলো বলতে পারি। বেশি ঘুমালে দেহে রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে যেতে শুরু করে৷ এতে শরীরে মেদ জমে। মেদ অবশ্যই স্ট্রোকের কারণ। এছাড়া, প্রচণ্ড মানসিক অবসাদ শরীরে ক্লান্তি আনে। তাতে অনেকে বেশি ঘুমান। আর এসব কারণে স্ট্রোকের ঝুঁকিও বাড়তে শুরু করে৷

তাই বেশি ঘুমোনোর অভ্যাস থাকলে দ্রুত পরিহার করুন। আরামপ্রিয়তাকে কিছুটা সংযত রাখতে পারলে আপনারই লাভ।

অনন্যা/এআই