Skip to content

২৯শে জুন, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | বুধবার | ১৫ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নদী আমার মা

নদীমাতৃক বাংলাদেশের চোখ জুড়ানো রূপ
গর্বে আমার বুক ভরে যায় মন থাকে না চুপ।
বিশ্বজুড়ে কোথাও নেই এত নদীর দেশ
ছোট নদী, বড় নদী, নেই কো নদীর শেষ।

পদ্মা-মেঘনা-যমুনা নাম সবার আছে জানা
ব্রহ্মপুত্র, আড়িয়াল খাঁ নদ রয়েছে নানা।
ইছামতী, ইরামতী, মধুমতী নামে
নদ-নদী বয় শতশত প্রিয় শহর-গ্রামে।

কালিগঙ্গা, তেলিগঙ্গা, রূপসা, কীর্তনখোলা
ইলিশমারী, তেঁতুলিয়া হৃদয়ে দেয় দোলা।
বেগবতী, চিত্রা, ঘাঘর, তিস্তা, তিতাস, বুড়ি
সুগন্ধা, সুই, সন্ধ্যা, চিত্রা, রয়েছে চুনকুড়ি।

শীতলক্ষ্যা, কর্ণফুলী, গোমতী, নাফ, আছে
সকল নদীর কলতানে মনটা আমার নাচে।
ধানসিঁড়িকে ভালোবেসে জীবনানন্দ
প্রেমের কাব্য লিখে গেছেন অপূর্ব ছন্দ।

নদীর প্রেমে মত্ত হয়ে রবীন্দ্র, নজরুল
নদীকাব্য লিখে গেছেন অনন্য অতুল।
কপোতাক্ষ নদের প্রেমে যিনি ছিলেন মত্ত
তিনি হলেন, বাংলা মায়ের মধুসূদন দত্ত।

সুরমা, মনু, কুশিয়ারা, জুড়ি নদীর ভিড়ে
জন্ম আমার ধন্য হলো খোয়াই নদীর তীরে।
সবুজ শ্যামল বাংলা মায়ের হরিৎ বরণ গা
বাংলাদেশের কবি আমি, নদী আমার মা।