Skip to content

২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | মঙ্গলবার | ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কনক চাঁপা

‘তুমি আমার এমনই একজন
যারে এক জনমে ভালোবেসে
ভরবে না এ মন’

আজও গানটি শুনার সঙ্গে সঙ্গে গানের সুরে গাইতে থাকে না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া মুশকিল। গানটি যার কণ্ঠে সবাই সুর মিলিয়ে থাকি সেই মানুষটিও সবার প্রিয় মানুষগুলোর একজন। যার কণ্ঠকে সবাই ভালোবাসে। তিনি হলেন সকলের প্রিয় সঙ্গীতশিল্পী কনক চাঁপা। বাংলার সঙ্গীতাঙ্গনের এই উজ্জ্বল নক্ষত্র নিজের গানের সুরে প্রতিটি মানুষের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন।

সবার প্রিয় সঙ্গীতশিল্পীদের তালিকায় কনক চাঁপার নামটি পাওয়া যাবে প্রথম সারিতে। কনক চাঁপা ১৯৬৯ সালের ১১ সেপ্টেম্বর ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তার দাদা বাড়ি সিরাজগঞ্জের কাজিপুরে হলেও কনক চাঁপার বেড়ে উঠা ঢাকায়। তার বাবা আজিজুল মোর্শেদ। পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যে কনক চাঁপা হলেন তৃতীয়। কনক চাঁপার স্বামী মইনুল ইসলাম খান।

সঙ্গীত জীবনে বাংলাদেশের বিখ্যাত কণ্ঠশিল্পী বশীর আহমেদের ছাত্রী ছিলেন কনক চাঁপা। দীর্ঘদিন তার কাছে উচ্চাঙ্গ, নজরুল সঙ্গীতসহ অন্যান্য ভারতীয় সঙ্গীতের তালিম নিয়েছেন তিনি। তবে নিজের স্থানে পৌঁছনের পিছনে তার পিতা আজিজুল হক মোর্শেদ ও স্বামী মইনুল ইসলাম খান দুজনের অবদানকেই অগ্রগণ্য করেন তিনি।

নিজের সঙ্গীত জীবনে কনক চাঁপা গেয়েছেন অনেক গান। চলচ্চিত্র, আধুনিক গান, নজরুল সঙ্গীত, লোকগীতি সহ সব ধরনের গানেই তিনি সমান পারদর্শী। বর্তমানে তিনি প্লেব্যাক সিঙ্গার হিসেবেও নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছেন। চলচ্চিত্রে তিনি তিন হাজারেরও বেশি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। তার প্রকাশিত একক গানের অ্যালবাম সংখ্যা ৩৫ টি। বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাবনুরের প্রায় প্রতিটি গানেই কণ্ঠ দিয়েছেন কনক চাঁপা। আর সেই গানগুলো ঝড়ও তুলেছিল তুমুল। চলচ্চিত্রের গান নিয়ে কনক চাঁপার সর্বশেষ প্রকাশিত অ্যালবাম ছিল ‘আবার এসেছি ফিরে’।

কনক চাঁপার সঙ্গীতের পাশাপাশি লেখক হিসেবেও সুখ্যাতি রয়েছে। ২০১০ সালের অমর একুশে বই মেলায় ‘স্থবির যাযাবর’, ২০১২ সালের অমর একুশে বই মেলায় ‘মুখোমুখি যোদ্ধা’ ও ২০১৬ সালের অমর একুশে বই মেলায় ‘মেঘের ডানায় চড়ে’ নামে তিনটি বই প্রকাশিত রয়েছে। ২০২০ সালে জীবন মূলক বই কাটা ঘুড়ি প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়াও বেশ কয়েকটি জাতীয় দৈনিকে নিয়মিত কলাম লেখেন তিনি।

কনক চাঁপার জনপ্রিয় গানগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো- ‘তুমি আমার এমনই একজন, তুমি মোর জীবনের ভাবনা, ভালো আছি ভালো থেকো, কোন কাননের ফুল গো তুমি’ প্রভৃতি। এগুলো ছাড়াও এই শিল্পীর কণ্ঠে রয়েছে অনেক অমর সৃষ্টি।

সঙ্গীত জীবনে কনক চাঁপা তিন বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে নারী শ্রেষ্ঠ প্লেব্যাক কণ্ঠশিল্পী পুরস্কার লাভ করেন। বাচসাস চলচ্চিত্র পুরস্কার, দর্শক ফোরাম পুরস্কার ১৯৯৮ এবং ১৯৯৯, প্রযোজক সমিতি পুরস্কার ১৯৯৫, প্রথম আলো মেরিল পাঠক জরিপ ৪ বার লাভ করেন। এছাড়াও অনন্যা শীর্ষ দশ সম্মাননাও লাভ করে তিনি।

আজ সঙ্গীতশিল্পী কনক চাঁপার জন্মদিনে তার জন্য রইলো শুভেচ্ছা ও শুভকামনা।

অনন্যা/এসএএস