Skip to content

২রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | শুক্রবার | ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ফ্যাশন-দুনিয়ায় মালার সাজ

সাজতে পছন্দ করে না, এমন নারী খুঁজে পাওয়া যায় না। বাড়ির বাইরে বের হলেই মুখে হালকা পাউডার, ঠোঁটে লিপস্টিক, হাতে ঘড়ি বা চুড়ি আর গলায় একটা মালা তো পরা চাই-ই। গলার মালা হালকা হয়, আবার কখনো ভারী হয়। মূলত, অনুষ্ঠানভেদে কিংবা কাপড়ভেদে একেক সময় একেক মালা পরা হয়। 

মালা তো নানা ধরনের হয়ে থাকে। যেমন- ফুলের মালা, পুঁতির মালা, সুতার তৈরি মালা, শঙ্খের তৈরি মালা, ধাতব কিংবা পিতলের তৈরি মালা, কাঠের মালা প্রভৃতি। 

যারা সাজগোজে বেশি সময় দিতে পারে না, তারা যদি বের হওয়ার সময় ড্রেসের সাথে ম্যাচ করে মালা পরে, তাহলেই তাদের দেখতে আকর্ষণীয় লাগে। তবে বিয়েবাড়িতে যাওয়ার সময় যে মালা পরা হয়, তা কিন্তু অন্য সময় পরা হয় না। বিয়েবাড়িতে কম-বেশি সবাই একটু ভারী শাড়ি পরে। আর সেই ভারী শাড়ির সাথে মিলিয়ে ভারী গয়নাও পরে।

আবার বিয়েবাড়ির সাজের সাথে জন্মদিনের সাজের কোনো মিল থাকে না। বিয়েবাড়িতে যেমন ভারী ড্রেসের সাথে ভারী মালা পরা হয়। ঠিক সে-ভাবেই জন্মদিনে ক্যাজুয়াল পোশাক পরা হয়। এই ক্যাজুয়াল পোশাকের সাথে মিলিয়ে পুঁতি কিংবা শঙ্খের তৈরি মালা পরা যায়।

অফিসে সাধারণত ফরমাল পোশাক পরা হয়। ফরমাল পোশাকে যদি কামিজ বা শাড়ি পরা হয়, সে-ক্ষেত্রে সিম্পল কোনো সুতা বা কাঠের তৈরি মালা ম্যাচি করে পরা যায়।

এ-ছাড়া, ঘোরাঘুরির সময় নিজের পছন্দ মতো পোশাকের সাথে ম্যাচি করে মালা পরলেও নিজেকে দেখতে সুন্দর লাগে।
 

 

 

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ