Skip to content

২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | বুধবার | ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চুলের রুক্ষতা দূর করতে করণীয়

দৈনন্দিন জীবনে ত্বকের যেমন যত্ন নেওয়া প্রয়োজন ঠিক তেমনি আমাদের চুলের যত্ন নেওয়ারও প্রয়োজন রয়েছে। আবহাওয়া, দূষণ, পুষ্টির অভাব, সঠিক যত্নের অভাবে আমাদের চুল হয় রুক্ষ ও প্রাণহীন। চুলের রুক্ষতা একটি কমন সমস্যা। আমরা কম বেশি সবাই এই সমস্যায় ভুগি। রুক্ষ চুলকে সুন্দর করে তুলতে প্রয়োজন চুলের ঠিকঠাক যত্ন। তাহলে কথা না বাড়িয়ে জেনে নেওয়া যাক কিভাবে আমরা রুক্ষ চুলের যত্ন নিব।

 

রুক্ষ চুলে শ্যাম্পু করার ৪০-৫০ মিনিট আগে নারিকেল তেল মাসাজ করে নিতে পারেন। অলিভ অয়েল চুলে আর্দ্রতা বজায় রাখতে সাহায্য করে তাই নারিকেল তেলের সাথে অলিভ অয়েল মিশিয়ে চুলে লাগাতে পারেন। এটি রুক্ষ চুলের জন্য উপকারী।

 

চুলের রুক্ষতা কমাতে ডিম দারুণ ভূমিকা পালন করে ।একটি ডিমের সাথে এক চা চামচ ভিনেগার ও মধু মিশেয়ে লাগিয়ে ৩০মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ভিনেগার ও মধুর পরিবর্তে টক দইও ব্যবহার করতে পারেন। এতে চুল নরম হবে এবং চুলে ভলিউম আসবে।

 

চুলের রুক্ষতা কমাতে বিয়ার ব্যবহার করতে পারেন। বিয়ারে প্রোটিন ও ভিটামিন বি আছে যা কিউটিকলে পুষ্টি যোগায়। পাশাপাশি চুলকে পরিষ্কার ও স্বাস্থ্যজ্জল রাখে। বিয়ার একটি বাটিতে ঢেলে রেখে তার পরদিন শ্যাম্পু করে বিয়ার দিয়ে চুল ধুয়ে দিতে হবে।

 

চুলের রুক্ষতা কমাতে কলার মাস্ক চমৎকার কাজ করে। একটি পাকা কলার সাথে ২ চা চামচ মধু ও ১/৪ কাপ নারিকেল তেল ভালোভাবে মিশিয়ে ৩০ মিনিটের জন্য চুলে লাগিয়ে নিন। তারপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। এটি চুলের রুক্ষতা কমানোর সাথে সাথে চুলের জেল্লাও বাড়াবেও।

 

এছাড়া চুলের রুক্ষতা কমাতে সপ্তাহে দুই দিন কন্ডিশনার ব্যবহার করবেন। রোদ ও ধূলা বালির কারণে চুল রুক্ষ হয়ে যায়। তাই চুল রুক্ষ হওয়ার আগে প্রতিরোধ হিসেবে বাইরে বের হওয়ার আগে চুল ঢেকে বের হতে পারেন।