Skip to content

১৭ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ | বুধবার | ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এহেন চিত্রের মাঝে ব্যথা মোর

চিতা জ্বলে দাউ দাউ নিয়মিত নতুন নতুন
নতুন করে জন্ম নেবে বেঁচে থাকা পৃথিবী পুরাতন
অগ্নির লেলিহান মায়াহীন তাপে পুড়ে যায় রোজ
আত্মার আত্মীয়রা চিনছে সমাজ–
মিলছে সমাজের সুবিধাবাদী ব্যাঘ্রর খোঁজ। 

 

বুঝি এই পৃথিবীকেই স্বৈরাচার বলেছিল কেউ? 

 

পাখিটাও বুঝেছিল ধ্বংস হবে এই ধরণী
পাপ আর অপকর্মের মালায় কারা যেন সাজায়েছিল এই সরণি,
এই বৃক্ষ ছাটার দেশ, মিথ্যে দেশ-মায়ার এই সমাবেশ
মহামারীর মাঝেও হিংসার দৌরাত্ম্য
ইহকাল মহামারীর মহাকাল
এখানে ডুবে যাবে আত্মার সমন্বয়; যাবে ডুবে মনুষ্যত্ব। 

 

যায় মরে মানুষেরা; চোখে দেখে নেতারা
দেখে চোখে এই শিক্ষিত মহল,
দুস্থর বানী হয়না কর্ণপাত
পুঙ্গী পুত্রের বংশধরেরা দেখে শুধু রাজনীতি আর জাতপাত।
কোন নেতা আছেন দলে; কেউবা আছেন জেলে
লজ্জার নেই বালাই, সাধু চোর মিলেমিশে আছেন সকলে। 

 

ভোগের রাজ্যে তোদের হয় বসবাস
জেল আর হাজতবাস তোদেরই সহবাস,
এই হল নেতাদের ভূমি সমতল
জনপ্রতিনিধি নয় তোরা;নয় তোরা সার্বিক মঙ্গলের সত্তা
তোরা ধান্দার আসল মোড়কে মোড়া মানুষ নকল। 

 

আমি ক্লান্ত; আমি ক্ষান্ত;এই মৃত্যুর বাণী শুনে শুনে আমি পরিশ্রান্ত
হে ধরণীর কাণ্ডারি, যদি তুমি থেকে থাকো কোথাও
এসে পরো মর্ত্যে; হাত ধরো এই শর্তে, মোদের সকলেরে বাঁচাও।

 

 

 

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ