কোথায় কি পাবেন?

কোথায় কি পাবেন?
কোথায় কি পাবেন?
ফার্মেসাইট ঘুরে ঘুরে ঔষধ কেনার থেকে ঘরে বসেই ওষুধ ডট কম থেকে কিনে নিন ঔষধ। আপনার প্রেসক্রিপশন আপলোড করে সহজেই জরুরী ঔষধগুলো কিনে নিতে পারবেন এখান থেকে। 

বিষয়টা অদ্ভুত তো বটেই! কোথায় কি পাবেন বললেই সবার আগে কোথায় গেলে কি পাওয়া যাবে তার কথাই মাথায় আসে। কিন্তু করোনা পরিস্থিতি সবকিছু বদলে দিয়েছে। এখন অনলাইনে কোথায় কি পাওয়া যাবে তা নিয়েই যত মাথাব্যথা। আগামীকাল ঈদ। অনেকের  প্রশ্ন এবারো কি এক নিরানন্দ ঈদ কাটাতে হবে আমাদের? কিন্তু যত নিরানন্দই হোক, ঈদের সময় কেনাকাটা তো আর বন্ধ করা যায়না। অন্তত ঘরে বসে প্রিয়জনদের সাথে ঈদের আমেজটুকু উপভোগ করায় দোষ নেই। 

প্রযুক্তি বদান্যতায় আমরা ঘরে বসেই এখন কোথায় কি পাওয়া যেতে পারে তা বুঝে ফেলতে পারি। পৃথিবী হয়তো ছোট হয়ে এসেছে কিন্তু এরকম ঘরে বসে ছোট হওয়াতে তেমন আনন্দ নেই। সেটুকু আমরা বুঝতে পারি। কিন্তু তারপরেও এই নিরানন্দ অস্বস্তিকর সময়েও হাত গুটিয়ে বসে থাকতে হচ্ছেনা তা নিয়েও কিছুটা সান্ত্বনা পাওয়া যায়। তাহলে কোথায় কি পাওয়া যায়? সেটুকু নিয়েই নাহয় কথা বলা যাক। 

 

 

কোথায় পাবেন ঈদের রসদ

 

নামেই পরিচয় কথাটা বোধহয় চাল ডালের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। চাল ডাল ডট কম মূলত খাদ্য দ্রব্যাদি কেনার সুবিধা দিয়ে থাকে। ঈদের সময় আর কিছু না হোক অন্তত খাবারের আয়োজনটা জম্পেশ হওয়া প্রয়োজন। পোলাও, গরুর মাংস, মুরগীর মাংসের আয়োজনটা তো থাকতেই হবে। আপাতত মুদির সদাই কেনার জন্যে বাইরে যাওয়া যায়। সেই সুবিধাও আছে। কিন্তু অনলাইন প্লাটফর্ম থেকে কেনার সুবিধাও আপনাকে বুঝতে হবে। 

তাছাড়া বিভিন্ন অফার আর ডিসকাউন্টের সুবিধাগুলোও ভোগ করা যাবে। চাল ডাল থেকে মাছ মাংস, চাল ছাড়াও প্রসাধনী কেনার সুযোগ আছে। তবে চাল ডাল থেকেই যে এসকল কেনা যাবে তা না। স্বপ্ন, আগোরা কিংবা মিনা বাজার ও অনলাইনে কেনাকাটার সুযোগ করে দিচ্ছে। এমন সুযোগটুকু হাতছাড়া করা বোকামোই হবে।

আবার ফেসবুকে বিভিন্ন পেজ থেকেও আপনি রসদ কেনার ব্যবস্থা করতে পারেন। তবে এক্ষেত্রে বিভিন্ন নির্ভরযোগ্য প্লাটফর্ম থেকেই কেনাকাটা করা ভালো হবে। 

 

পুরাতন পণ্য কেনাবেচা
ইদের সময়েও অনেকে বিভিন্ন পুরাতন পণ্য কেনার একটি নির্ভরযোগ্য প্লাটফর্ম খুঁজে বেড়ান। অনেকেই বিক্রয় ডট কমের মতো প্লাটফর্মে পুরাতন পণ্য কেনাবেচার ক্ষেত্রে স্বস্তি পান না। আবার বর্তমান পরিস্থিতিতে স্মার্টফোন, ঘরের আসবাব, ইলেকট্রনিক্স, গাড়ি বিক্রির জন্যে নির্ভরযোগ্য কোন প্লাটফর্ম খুঁজলে সোয়াপ একটি ভালো প্লাটফর্ম। সোয়াপ মূলত বর্তমানে পুরাতন পণ্য কেনার কাজ করে। সোয়াপ এক্ষেত্রে আপনার নির্ভরযোগ্য প্লাটফর্ম হয়ে উঠতে পারে। 

স্মার্টফোন কেনার জন্যে সবচেয়ে ভালো প্লাটফর্ম পিকাবু। অনলাইনে খুব সহজেই আপনি এখান থেকে স্মার্টফোন, ল্যাপটপ কিংবা ইলেকট্রনিক এপ্লায়েন্স কিনে নিতে পারেন। 


দারাজের দরজা ও ইভ্যালি

করোনার সময় দারাজের দরজাটুকু আশীর্বাদের মতোই বলা চলে। একদম শুরু থেকেই দারাজ বিভিন্নভাবে সেবা দিয়ে যাচ্ছে। দারাজ থেকে কেনা যায়না এমন কোন পণ্য নেই। তবে দারাজ সরাসরি কোন পণ্য বিক্রি করে না। বরং বিভিন্ন বিক্রেতারা এখানে তাদের পণ্য বিক্রি করে থাকে। তাই কেনার সময় বুঝে শুনে কিনে নিতে হয়। তবে দারাজ থেকে পোশাক, আসবাব, নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র খুব সহজেই কিনে নিতে পারবেন। 

দারাজের পর ইভ্যালিও একটি নির্ভরযোগ্য প্লাটফর্ম। তবে ইভ্যালির ডেলিভারি সার্ভিস নিয়ে অনেকেরই অভিযোগ পাওয়া যাবে। তবে ইভ্যালির পোশাক, মুদি রসদ, কিংবা ছোটখাটো অর্ডারগুলো খুব দেরি করেনা। তাই ইভ্যালি থেকেও আপনি কেনাকাটা করতে পারেন। 

 

বই কিনুন

ঈদের সময় অনেকেই হয়তো ঘরে বসে বসে বিরক্ত হবেন। এই সময় বইপ্রেমীরা বই কেনার জন্যে নির্ভরযোগ্য প্লাটফর্ম খুঁজলে সবার আগেই রকমারির কথা মনে আসে। এছাড়া ফেসবুকেও অনেক প্রকাশনী তাদের নির্দিষ্ট পেজে বই বিক্রি করে থাকেন। 

আপনি যদি হার্ডকপি না কিনে সফটকপি কিনতে চান তাহলে বইটই কিংবা সেই বই থেকেও নতুন বই কিনে নিতে পারবেন। 

 

ফেসবুক

ফেসবুক থেকেই এখন সব জিনিসের খোঁজ মেলে। প্রায় প্রতিটি ব্যবসায়েরই একটি ফেসবুক পেজ থাকে। ঘরে বসে খুব সহজেই তাদের পেজে খোঁজ নিয়ে আপনি অর্ডার করতে পারেন। এক্ষেত্রে একটি বড় সমস্যা হল নির্দিষ্ট দোকান বা ব্যবসায়ের নাম মনে রাখা। 

আবার অনেক নামীদামী প্রতিষ্ঠানের পেজ থাকলেও তারা ফেসবুক থেকে কেনার সুবিধা দেয়না। 

 

ব্র্যান্ডগুলোর ওয়েবসাইট

প্রায় প্রতিটি নামীদামী  প্রতিষ্ঠানগুলোরই একটি ওয়েবসাইট আছে। ঘরে বসে তাদের ওয়েবসাইটেই সহজে অর্ডার করা যাবে। 

 

ঔষধ কেনার প্লাটফর্ম ওষুধ ডট কম

ফার্মেসাইট ঘুরে ঘুরে ঔষধ কেনার থেকে ঘরে বসেই ওষুধ ডট কম থেকে কিনে নিন ঔষধ। আপনার প্রেসক্রিপশন আপলোড করে সহজেই জরুরী ঔষধগুলো কিনে নিতে পারবেন এখান থেকে। 


অনলাইন থেকে কেনাকাটা ছাড়া অনেকেরই গতি নেই। আর অনলাইন ঠিক প্রতিষ্ঠানগুলোর মত নয়। তাই কোন শপিং মলে গেলেই যেভাবে ঘুরলে ফিরলে দোকান একটা পাওয়া যায়, অনলাইনে সেই সুবিধা কিছুটা কম। আপনাকে খুঁজে খুঁজে বের করতে অধিকাংশ জায়গা। এসময় আপনাকে কিছুটা তো ভোগান্তি পোহাতেই হবে। যেমনটা কোথায় কি পাওয়া যায় বোঝাতে গিয়ে আমাদের মুখোমুখি হতে হয়েছে।