Skip to content

২রা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | রবিবার | ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দ্যা কুইন্স গ্যামবিট

মুক্তির পরপরই জনপ্রিয়তার তুঙ্গে 'দ্যা কুইন্স গ্যামবিট'। নেটফ্লিক্সের ‘দ্য কুইন্স গ্যামবিট’ নামের ৭ পর্বের মিনি সিরিজটি  ৬৩টি দেশে রয়েছে এক নম্বরে। আর ৯৩টি দেশে আছে সেরা দশের মধ্যে। এ যেন ' দ্যা কুইন্স গ্যামবিট এর বিশ্বজয়। 
আর বিশ্বজয়ী হবে নাই বা কেন। দর্শক আকর্ষণ করার জন্য এক কৌশল ধর্মী গল্প  'দ্যা কুইন্স গ্যামবিট'। গল্পটি ১৯৫০ থেকে ৬০ এর সময়ের।  অনাথাশ্রমে থাকা বেথ হারমন নামক এক মেয়ের কাহিনী তুলে ধরা হয়েছে এখানে । একটি দুর্ঘটনায় মারা যান বেথ হারমনের মা। আর হারমনের মা মারা যাওয়ার পর তাকে নিয়ে আসা হয় অনাথাশ্রমে। সেখানে তার পরিচয় হয় প্রহরী মি. শাইবেল এর সঙ্গে। প্রহরী শাইবেল এর থেকেই  দাবা খেলার হাতে খরী নেয়া শুরু করে হারমন। ধীরে ধীরে তিনি  দাবা খেলায় পটু হয়ে যায় এবং পরিণত হয় দাবা খেলার বিস্ময়কর প্রতিভায়। এরপর সে সময়ের পুরুষতান্ত্রিক সমাজে একজন নারী দাবারুর উত্থানের বিষয়টি লক্ষ্য করা যায় । পরাজয়, মাদকাসক্তি, অসহায়ত্বের মিশ্রণে তৈরি বেথ হারমান  চরিত্রটি সহজেই আকর্ষণ করতে পারে  দর্শককে । বিভিন্ন প্রতিকূলতার বিরুদ্ধে হারমনের লড়াই, তার অধ্যবসায় ও নিজের প্রতি বিশ্বাস চরিত্রটিকে দিয়েছে নতুন মাত্রা। 

খুব বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে সিরিজটির পর্বগুলোও এগিয়েছে দাবা খেলার পর্ব বিভক্তিকে অনুসরণ করে। মাত্র সাত পর্বের সিরিজের সাতটি পর্বের নামগুলো হল: ওপেনিংস, এক্সচেঞ্জেস, ডাবল্ড পনস, মিডল গেম, ফর্ক, অ্যাডজর্নমেন্ট ও এন্ড গেম। এই সিরিজের পরামর্শদাতা হিসেবে ছিলেন সর্বকালের সেরা দাবারুদের একজন গ্যারি ক্যাসপারভ এবং চেস কোচ ব্রুস প্যানডোলফিনি। তাই সিরিজটিতে যে কয়টি দাবা খেলা দেখানো হয়েছে, এর সব কয়টি ছিল নির্ভুল এবং নিয়মমাফিক খেলা। 

 

বেথ হারমোন চরিত্রে অভিনয় করেছেন আন্যা টেইলর-জয়। শাইবেল চরিত্রে অভিনয় করেছে বিল ক্যাম্প। সিরিজটির কাহিনী এবং চিত্রায়ন ছিল এক কথায় অনবদ্য। প্রত্যেক অভিনেতা এবং অভিনেত্রীদের অভিনয়, পোশাক, সেট ডিজাইন সব মিলিয়ে সিরিজটিকে করে তুলেছে মনোমুগ্ধকর। 

নেটফ্লিক্স তাদের ওয়েবসাইটে বলেছে, 'তিন বছর আগে স্কট ফ্র্যাঙ্ক যখন আমাদের কাছে কুইন্স গ্যামবিট তৈরির প্রস্তাব নিয়ে আসেন, আমাদের মনে হয় এটা নিয়ে আমাদের কাজ করতেই হবে। '
স্ট্রিমিং দুনিয়ায় রীতিমত ঝড় বইয়ে দিচ্ছে নেটফ্লিক্সের এই মিনি সিরিজটি । মুক্তির ২৮ দিনের মাথায় সারা বিশ্বে ৬ কোটি ২০ লাখ বার এটি দেখা হয়েছিলো। এত কম সময়ে আর কোন মিনি সিরিজ এত বেশি বার দেখা হয়নি।

 

গত ২৩ অক্টোবর সিরিজটি মুক্তির  মাত্র এক মাস পরই নেটফ্লিক্স টুইটে জানায় সিরিজটি কত কম সময়ে কত বেশি বার দেখা হয়েছে। তাছাড়া, মার্কিন ওয়েবসাইট ‘রটেন টম্যাটোস’ সেরা ২০ এর তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে ‘দ্য কুইন্স গ্যামবিট’।

ছবিটি নির্মাতা স্কট ফ্রাঙ্ক। যিনি আউট অব সাইট’ এবং ‘লোগান’ ছবির জন্য চিত্রনাট্যকার হিসেবে দুটি অস্কার জিতেছেন । এখানেও তিনি তার পুরো দক্ষতাকেই কাজে লাগিয়েছেন মনের মাধুরী মিশিয়ে। আর এক্ষেত্রে তিনি কতটা সফল তা তো আর বলার অপেক্ষা রাখেনা। 

পুরুষতান্ত্রিক সমাজে একজন নারী দাবাড়ুর উত্থান, দাবা খেলার উত্তেজনা, কৌতূহল, সব মিলিয়ে 'দ্যা কুইন্স গ্যামবিট'  দর্শকদের মনে অনায়াসে জায়গা করে নেয়ার যোগ্য।