অপরাজিতার দুটি চলচ্চিত্র পেল আন্তর্জাতিক সম্মাননা

অপরাজিতার দুটি চলচ্চিত্র পেল আন্তর্জাতিক সম্মাননা
ছবি: সংগৃহীত
উৎসবে জমা পড়েছিল ৭০টি দেশের চার শতাধিক চলচ্চিত্র। সেখান থেকে উৎসবে প্রতিযোগিতার জন্য নির্বাচিত হয়েছিল ৫৪ দেশের ১৭৭টি চলচ্চিত্র। তার মধ্য থেকেই বিজয়ী হলো অপরাজিতার দুই ছবি।

সাম্প্রতিক আন্তর্জাতিক পুরস্কার জিতেছে অপরাজিতা সংগীতার দুটি স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমা ‘ছাড়পত্র’ ও ‘রিভেল্ট’। সিনেমেকিং ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে পুরস্কারগুলো দেয়া হয়। ‘বাংলাদেশ শর্ট ফিল্ম কম্পিটিশন’ বিভাগে সেরা সিনেমার পুরস্কার পেয়েছে ‘ছাড়পত্র (সেপারেশন)’। ‘ক্ল্যাসিক্যাল শর্ট ফিল্ম’ বিভাগে ‘স্পেশাল মেনশন’ পেয়েছে ‘রিভোল্ট’ (দ্রোহ) ছবিটি। 


এ ব্যাপারে অপরাজিতার অনুভূতি জানতে চাইলে বললেন, মাত্রই তিনি একটি মেইল পেলেন। সেখানে জানানো হয়েছে, ভারতের মুম্বাইয়ে ইন্টারন্যাশনাল কালচারাল আর্টিফ্যাক্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে চূড়ান্ত মনোনয়ন পেয়েছে অপরাজিতার ছবি ‘রিভোল্ট’। এই উৎসবে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করা একমাত্র ছবি এটি।  


সিনেমেকিং ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল শুরু হয় ২৪ ডিসেম্বর। তিন দিনব্যাপী এ উৎসবের শেষ দিন ছিল ২৬ ডিসেম্বর। সেদিনই সমাপনী অনুষ্ঠানে এই পুরস্কারের ঘোষণা দেওয়া হয়। উৎসবে জমা পড়েছিল ৭০টি দেশের চার শতাধিক চলচ্চিত্র। সেখান থেকে উৎসবে প্রতিযোগিতার জন্য নির্বাচিত হয়েছিল ৫৪ দেশের ১৭৭টি চলচ্চিত্র। তার মধ্য থেকেই বিজয়ী হলো অপরাজিতার দুই ছবি।
এর আগে ‘ছাড়পত্র’ চলচ্চিত্রের ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হয় বেলজিয়ামে। জাতিসংঘ কর্তৃক আয়োজিত ‘বিশ্বজুড়ে নারী ও মেয়েদের প্রতি সহিংসতা দূরীকরণের আন্তর্জাতিক দিবস’-এর অংশ হিসেবে ছবিটি প্রদর্শনীর আয়োজন করে বেলজিয়ামের ‘মানবতা কালেক্টিভ ভি জেড ডাব্লিউ’।


এক দম্পতি, দুজন দুজনকে প্রচণ্ড ভালোবাসে। এই দম্পতির ভূমিকায় অভিনয় করেছেন নওশাবা ও নাফিস। তাঁদের মধ্যে কোনো পারিবারিক অশান্তি, পরকীয়া, সহিংসতা বা অন্য কোনো সমস্যা নেই। সব ঠিকঠাক। কিন্তু তারপরও বিচ্ছেদ চান নওশাবা। একজন নারীর প্রতিবাদের গল্প ‘ছাড়পত্র’। এই ছবিতে অভিনয় করেছেন কাজী নওশাবা আহমেদ, জয়িতা মহলানবীশ, নাফিস আহমেদ, বাবর আলী, বুলু বারী, পিংকী, শুভ্রা, ইভা, মারসাদ, সুপ্রভাত, জিহাদ, শ্রবণ ও বাক্‌প্রতিবন্ধী সিনহা এবং শিশুশিল্পী টিমটিম।


স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘ছাড়পত্র’র কাহিনি, চিত্রনাট্য ও পরিচালনা করেছেন অপরাজিতা সংগীতা। ‘ক্ল্যাসিক্যাল শর্ট ফিল্ম’ সেকশনে ‘স্পেশাল মেনশন’ পুরস্কারপ্রাপ্ত ‘রিভোল্ট’ নির্মিত হয়েছে নারী ও তার যাপিত জীবনের বাক্‌স্বাধীনতাহীন বাস্তবতা এবং সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর গল্প নিয়ে। কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন সানজীদা প্রীতি। 
আশা করা যাচ্ছে সামনে তার কাছ থেকে এরকম ভালো নির্মাণ পাবো আমরা।