Skip to content

২০শে আগস্ট, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | শনিবার | ৫ই ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘হাওয়া’ সিনেমার বেদেপল্লির ‘গুলতি’ হয়ে ওঠার গল্প

‘তুমি বন্ধু কালা পাখি
আমি যেন কী?
বসন্ত কালে তোমায়
বলতে পারিনি।
সাদা সাদা কালা কালা
রঙ জমেছে সাদা কালা…’

‘হাওয়া’ সিনেমার ‘সাদা সাদা কালা কালা’ গানটি সিনেমা মুক্তি হওয়ার আগে দর্শকদের মনে জায়গা করে নিয়েছিল। গানটির মধ্য দিয়েই মুক্তির আগেই শহর-গ্রাম, দেশ-বিদেশে আলোচনার শীর্ষে উঠেছে মেজবাউর রহমান সুমনের পরিচালিত সিনেমা ‘হাওয়া’। ২৯ জুলাই (শুক্রবার) দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে সিনেমাটি। মুক্তির সঙ্গে সঙ্গে ব্যাপক সাড়াও পাচ্ছেন। দেশের প্রেক্ষাগৃহগুলোতে অগ্রিম টিকিট কাটতে গিয়েও হিমশিম খাচ্ছে মানুষ বলে জানা গিয়েছে।

‘হাওয়া’ সিনেমায় অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, শরিফুল রাজ, নাফিজা তুষিসহ অনেকে।

সিনেমাটি জেলেদের জীবনের গল্প নিয়ে গভীর সমুদ্রে নির্মিত। সিনেমা নির্মাণের গল্পও দর্শকদের আকৃষ্ট করছে। প্রচার-প্রচারণায় দর্শকদের সঙ্গে সিনেমার গল্পগুলো ভাগাভাগি করে নিচ্ছেন সিনেমাটির পুরো টিম।

সিনেমার অন্যতম একটি চরিত্রে রয়েছেন নাফিজা তুষি। তিনি ‘হাওয়া’ সিনেমায় বেদেপল্লির ‘গুলতি’ চরিত্রে অভিনয় করেছেন। নাফিজা তুষি আলোচনায় এসেছিলেন রেদোয়ান রনির ‘আইসক্রিম’ দিয়ে। হাওয়া সিনেমার শুটিং শুরু হয় ২০১৯ সালে। তবে এর একবছর আগেই সিনেমাটির সঙ্গে যুক্ত কলাকুশলীরা টিম-ওয়ার্ক শুরু করেছিলেন। তুষিও তার নিজের চরিত্রের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন বলে জানান।

তুষি তার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করতে গিয়ে বলেন, ‘‘এখন মনে হয় অসাধ্য সাধন করেছি। আমাদের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে ছয় মাস চরিত্রটি ধারণ করেছি। ছয় মাস বিছানায় ঘুমাইনি। মাছ কাটতাম, শাড়ি পরতাম। ‘গুলতি’ হয়ে ওঠার জন্য বেদেপল্লিতে গিয়েছি, ওদের সঙ্গে থেকেছি, ওদের খাবার খেয়েছি। ওদের ওয়াশরুম ব্যবহার করেছি। শ্যুটিংয়ের সময় একমাস মোবাইল ফোনও ব্যবহার করিনি। অন্যরাও একই রকমভাবে নিজেদের চরিত্রের ভেতর ডুবে ছিল। আমরা জানতাম ‘ডু অর ডাই’ অবস্থা হতে যাচ্ছে। ‘গুলতি’ আমার করা সবচেয়ে কঠিন চরিত্র।’’

তুষির কাছে তার চরিত্র ‘গুলতি’ নিয়ে জানতে চাইলে দর্শকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘এটি একটি রহস্যময় চরিত্র। ওর মধ্যে যে রহস্য আছে তা ধাপে ধাপে উন্মোচন হয়। সে আসার পর থেকে গল্পের বাঁক বদলাতে থাকে। প্রেক্ষাগৃহে দেখলে দর্শক বুঝতে পারবে চরিত্রটি কেমন।’’

অনন্যা/এসএএস