Skip to content

১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ | রবিবার | ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বৈঠকখানায় অনন্যা শীর্ষদশ সুপ্রীতি ধর!

গত মঙ্গলবার পাক্ষিক অনন্যার নিয়মিত আয়োজন ' অনন্যা স্পেশাল – বৈঠকখানায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত হন 'উইমেন চ্যাপ্টারের' সম্পাদক এবং অনন্যার শীর্ষদশ প্রাপ্ত সুপ্রীতি ধর। যিনি  একজন সাংবাদিকও।  

 

অনুষ্ঠানের শুরুতেই   নারীবাদ নিয়ে নিজের অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন।  এরপরেই তিনি উইমেন চ্যাপ্টার শুরু হওয়ার গল্প গুলো শেয়ার  করেন। তিনি জানান, উইমেন চ্যাপ্টার শুরুর সময় তার এমন পরিকল্পনা এবং স্বপ্ন  ছিলো যে, এমন একটা প্লাটফর্ম তৈরি হবে যেখানে সব পদে কর্মী থাকবে শুধু নারী। কিন্তু স্বপ্ন পূরণে আসলে বাস্তবে এসে অনেক গুলো আনুষঙ্গিক বিষয় দরকার পড়ে। যেগুলোর সবটা একসাথে থাকতে হয়। কিন্তু একত্রকরণ হয়ে উঠছিলো না বলে স্বপ্নটা ঠিকঠাক পূরণ হতে পারছিলো না। 

 

এরপরেও তিনি সময়ে সাথে সাথে হেফাজতে ইসলাম,  মৌলবাদের মতন নানান বিষয় দ্বারা নারীদের বিরোধিতার চিত্র, তাদের লেখার বা বলার একটা প্লাটফর্মের প্রয়োজনীয়তা আরো বেশি উপলব্ধি হচ্ছিলো।

 

সেখান থেকে উইমেন চ্যাপ্টারের শুরু। এছাড়াও তিনি উইমেন চ্যাপ্টার শুরুর পরেও যেসব বাধার সম্মুখীন হতে হয় সেসব নিয়ে আলোচনা করেন। তিনি বলেন, সবথেকে বড় বাধাটা ছিল উদ্যোগ নেওয়া। এমনকি একজন 'সিঙ্গেল মাদার' হিসেবে তার সে জার্নি টা কতটা কঠিন ছিলো সেসব গল্পও করেন সুপ্রীতি।  

 

উইমেন চ্যাপ্টারের মত জায়গা থেকে এক প্রকার যে নারী আন্দোলনের উদ্যোগ নিয়েছেন তাতে অনেক শত্রুও তৈরি হয়েছে সুপ্রীতির। মৌলবাদীরা ছাড়াও অনেকে তার বিরুদ্ধে দাঁড়ায়।  এক প্রকার অনিশ্চয়তায় সেই সময়টা কাটিয়েছেন।  

 

এছাড়াও অনুষ্ঠানে দর্শকদেরও প্রশ্ন থাকে। এমনকি তিনি রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট থেকেও নারীর অধিকার, আন্দোলন, এসব বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। 

 

অনুষ্ঠানের শেষে তিনি মনের আশা ব্যক্ত করেন যে, অনেক সময় ফাটা দেয়ালে যেমন গাছের জন্ম হয় এবং সেটা বেড়ে উঠে। তেমনই যেখানে সম্ভাবনা আছে সেদিকে মেয়েদের একটু এগিয়ে দিলে সেপথে আলো আসবেই।

 

 

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ