Skip to content

৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ | সোমবার | ২৪শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মডেলিংয়ে কি ‘সাইজ জিরো’ ফিরে আসছে?

মিলান, প্যারিস আর নিউইয়র্কের সাম্প্রতিক ফ্যাশন শোগুলোতে ‘সাইজ জিরো’ ফিরে আসছে বলে মনে হচ্ছে৷ প্রায় সব মডেলই অনেক পাতলা ছিলেন৷ তাহলে কি ‘বডি পজিটিভিটি’ ট্রেন্ড শেষ হতে চলেছে? ওটা কি শুধুই একটা পাবলিসিটি মুভ ছিল?

ইটালির মডেলিং এজেন্সি ‘ইমপেরফেত্তা’ মডেল হিসেবে আলবিনিজমে আক্রান্ত দুই বোন মাটিল্ডে ও আঞ্জেলিকা অরেলিকে বেছে নিয়েছে৷ সুন্দরের বর্তমান সংজ্ঞা পালটানো এই সংস্থার লক্ষ্য৷

ইমপেরফেত্তার প্রধান কারলোটা জানকানে বলেন, ‘‘ওজন, অরিজিন, ত্বকের রঙ বা উচ্চতা বিষয়ে আমাদের কোনো নির্দিষ্ট মানদণ্ড নেই৷ মডেল নির্বাচনের ক্ষেত্রে প্রতিভাই একমাত্র বিবেচ্য বিষয়৷”

গত কয়েক বছর ধরে ফ্যাশন জগতের একটি অংশ বৈচিত্র্যতার দিকে ঝুঁকছে৷ মডেলদের লম্বা, পাতলা আর যতটা সম্ভব নিখুঁত হতে হবে, এমন ধারণাকে তারা চ্যালেঞ্জ করছে৷

ভ্রু কুঁচকে দেয়, এমন মডেল ব্যবহারই ইমপেরফেত্তা এজেন্সির মূল লক্ষ্য৷

সাম্প্রতিক সময়ে অনেক লেবেল তাদের পোশাকের বিজ্ঞাপনে স্থূল আকারের মডেলের ব্যবহার শুরু করেছে৷

তবে মিলান, প্যারিস আর নিউইয়র্কে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত শোগুলোতে ‘সাইজ জিরো’ ফিরে আসছে বলে মনে হচ্ছে৷ তাহলে কি ‘বডি পজিটিভিটি’ ট্রেন্ড আবার শেষ হতে চলেছে? ওটা কি শুধু একটা পাবলিসিটি মুভ ছিল? প্যারিসের ফ্যাশন সাংবাদিক ভিক্স ফস্টার অবশ্য এই বিষয়টিতে অবাক হননি৷ তিনি বলছেন, ‘‘বর্তমানে প্রায় সব শোতে অন্তত এক বা দুইজন স্থূল মডেল রাখা হচ্ছে৷ এটা অবশ্যই একটা ট্রেন্ড এবং ফ্যাশনে সবাইকে অন্তর্ভুক্ত করার একটা চেষ্টা, ডাইভারসিটি… আবার কখনও এটা সামান্য হলেও ধোঁকা বটে, কারণ স্টোরগুলোতে গিয়ে যদি আপনি অনেক বড় সাইজের কিছু চান, তারা বলবে, নেই… তাদের হয়ত বড়, এক্সট্রা বড় সাইজ আছে, কিন্তু তাদের থ্রিএক্সএল নেই৷”

হয়ত এটি একটি ট্রেন্ড, কিন্তু এটি ফ্যাশন জগতের সৌন্দর্য্যের ইমেজে প্রভাব ফেলেছে৷ বিভিন্ন জাতিসত্ত্বার মডেলরা এখন যে-কোনো সময়ের চেয়ে বেশি জনপ্রিয়৷ ম্যাগাজিনগুলোতে এখন প্রতিবন্ধী ও একটু বয়স্কদের মডেল হিসেবে দেখা যাওয়া এখন স্বাভাবিক৷

ভিক্স ফস্টার বলেন, ‘‘এই ট্রেন্ড কি চলতে থাকবে? আমার মনে হয় চলতে থাকবে, তবে গণমাধ্যম আর সামাজিক মাধ্যমে যতটা দেখা যাচ্ছে, হয়ত ততটা নাও হতে পারে৷”

হয়ত বিষয়টি এমনই, কিন্তু ২০২০ সালে যাত্রা শুরুর থেকে ইমপেরফেত্তা এজেন্সি নিয়মিত বেশি কাজ পাচ্ছে৷

ইমপেরফেত্তার প্রধান কারলোটা জানকানে বলেন, ‘‘শুরুতে বিষয়টা খুব কঠিন ছিল, কারণ লেবেলগুলো শুধু একধরনের মডেলদের দিয়ে কাজ করাতে অভ্যস্ত ছিল৷ কিন্তু ক্রমেই লেবেলগুলো তাদের ক্রেতাদের ভালোভাবে প্রতিনিধিত্ব করার গুরুত্ব বুঝতে পারছে৷”

এখন কোনটা আকর্ষণীয় আর ট্রেন্ডি, এই বিষয়গুলো শুধু লেবেলগুলোই ঠিক করে না৷ এখন ক্রেতাদেরও কথার মূল্য আছে৷ পরবর্তী প্রজন্ম এই পরিবর্তিত সমাজের অংশ, যেখানে বৈচিত্র্যতার গুরুত্ব আছে৷ আর এই সময়কে প্রতিনিধিত্ব করে এমন মডেলের চাহিদা আছে৷

অনন্যা/এআই

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ