Skip to content

২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | শনিবার | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

এবারের অস্কারে সেরা পরিচালক হলেন যে নারী!

অস্কারে গত আসরে অর্থাৎ ৯৩ তম অস্কারে সেরা পরিচালকের পুরস্কার ওঠে নারী নির্মাতা ক্লোয়ি ঝাঁও এর হাতে। বছর না ঘুরতেই ৯৪ তম আসরে আবারও সেরা পরিচালকের পুরষ্কার উঠলো একজন নারী পরিচালকের হাতে। এ বছর সেরা পরিচালক হিসেবে অস্কার জিতেছেন নারী নির্মাতা জেন ক্যাম্পিয়ন। 

 

যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলসের ডলবি থিয়েটারে গতকাল জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হয় অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডসের ৯৪তম আসর। বাংলাদেশ সময় অনুযায়ী সোমবার (২৮ মার্চ) পর্দা নামে চলচ্চিত্র দুনিয়ার সবচেয়ে সম্মানজনক এ অনুষ্ঠানের। 

 

এবারের আসরে সেরা পরিচালকের তকমা পান জেন ক্যাম্পিয়ন। তিনি অস্কার বিজয়ী তৃতীয় নারী পরিচালক।  ‘দ্য পাওয়ার অব দ্য ডগ’ সিনেমার জন্য সেরা পরিচালকের শিরোপা জিতেছেন তিনি। এ সিনেমায় অভিনয় করেছেন বেনেডিক্ট কাম্বারব্যাচ, জেসি প্লেমন্স, কোডি স্মিত-ম্যাকফি, ক্রিস্টেনসহ আরও অনেকে।

 

পরিচালক ক্যাম্পিয়ন ইতোমধ্যে ‘দ্য পাওয়ার অব দ্য ডগ’ চলচ্চিত্রটির জন্য বেশ কয়েকটি পুরস্কার জিতেছেন। যার মধ্যে রয়েছে বাফটাতে সেরা পরিচালক, গোল্ডেন গ্লোবস, ডিরেক্টরস গিল্ড অব আমেরিকা পুরস্কার এবং ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা পরিচালকের জন্য সিলভার লায়ন পুরস্কার।

 

তবে এটিই জেন ক্যাম্পিয়নের প্রথম অস্কার জয় নয়। এর আগেও একবার অস্কার জয়ের তকমা গায়ে লেগেছিল তাঁর। তবে তা আজ থেকে ২৮ বছর আগে। ১৯৯৪ সালে ‘দ্য পিয়ানো’ সিনেমার জন্য সেরা মৌলিক চিত্রনাট্য পুরস্কার জিতেছিলেন তিনি। সেরা পরিচালক হওয়ার লড়াইয়েও ছিলেন সেবার। একই সিনেমার জন্য সেরা পরিচালকের মনোনয়নও পান। তবে শিরোপা জেতার সৌভাগ্য হয়ে ওঠেনি তখন। 

১৯৫৪ সালের ৩০ এপ্রিল নিউজিল্যান্ডের ওয়েলিংটনে জন্মগ্রহণ করেন ক্যাম্পিয়ন। তিনি একাধারে পরিচালক, প্রযোজক, চিত্রনাট্যকার। তাঁর বিনোদন জগতে আসার পেছনে রয়েছে তাঁর বাবা-মা। তাঁর মা ইডিথ ক্যাম্পিয়ন একজন অভিনেত্রী ও লেখিকা এবং পিতা রিচার্ড এম. ক্যাম্পিয়ন একজন অভিনয়ের শিক্ষক এবং মঞ্চ ও গীতিনাট্য পরিচালক। তাই নিউজিল্যান্ডের মঞ্চজগতের সাথে পরিচিতি নিয়ে বেড়ে ওঠেন তিনি।

ক্যাম্পিয়নের প্রথম স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র পিল (১৯৮২) ১৯৮৬ সালে কান চলচ্চিত্র উৎসবে জায়গা পায়। এরপর তিনি প্যাশনলেস মোমেন্টস (১৯৮৩), আ গার্ল্‌স ওন স্টোরি (১৯৮৪), ও আফটার আওয়ার্স (১৯৮৪) নির্মাণ করেন। এছাড়া ক্যাম্পিয়ন অ্যান অ্যাঞ্জেল অ্যাট মাই টেবল (১৯৯০), হলি স্মোক! (১৯৯৮) ও ব্রাইট স্টার (২০০৮) চলচ্চিত্র পরিচালনার জন্য বেশ খ্যাতি অর্জন করেন। 

ক্যাম্পিয়ন শুধু তৃতীয় নারী হিসেবে অস্কার জেতার খেতাবই অর্জন করেননি সেই সাথে তৈরি করেছেন আরো একটি ইতিহাস। তিনিই একমাত্র প্রথম নারী হিসেবে দুইবার সেরা পরিচালক ক্যাটাগরিতে মনোনীত হয়েছেন। এছাড়াও উল্লেখ্য আরো একটি বিষয় হলো, দীর্ঘ এক যুগ বিরতির পর সিনেমাটি নির্মাণ করেন তিনি। আর তাতেই বাজিমাত। তাঁর এ সাফল্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাঁকে প্রশংসায় ভাসাচ্ছেন দর্শকরা৷