পিরিয়ডে যে খাবার পেটে ব্যথা কমায়!

পিরিয়ডে যে খাবার পেটে ব্যথা কমায়!
ছবি: সংগৃহীত
পিরিয়ড চলাকালে সকালে খালি পেটে ভেজানো কিশমিশ এবং কেসার (জাফরান) খেলে পেটে ব্যথা কম হয়। পেটে ব্যথা কমাতে এবং অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ নিয়ন্ত্রণ করতে কিশমিশ উপকারী। সেই সঙ্গে পিরিয়ডের ব্যথা কমাতে কাজ করে জাফরান। 

পিরিয়ড, মেয়েদের প্রতি মাসের একটি স্বাভাবিক শারীরিক প্রক্রিয়া।  স্বাভাবিক হলেও মাসের অন্য দিনগুলোর থেকে পিরিয়ডের দিনগুলোতে শারীরিকের সাথে সাথে মানসিক স্বাস্থ্যও একটু ভিন্ন হয়ে থাকে। 
মুড সুইং,  মেজাজ খিটখিটে, সবকিছুর প্রতি এক রকম অনীহা এসব সমস্যা দেখা দেয় এই সময়টাতে। তবে মানসিকের থেকে শারীরিক ভাবে সুস্থ থাকাটাই এ সময় বেশি গুরুত্বপূর্ণ।  কেননা পিরিয়ডে অনেকের অনেক রকম জটিলতা দেখা দেয়।  পেটে ব্যথা এই জটিলতার গুলোর অন্যতম। তাই কিছু খাবার খেলে এই পেটে ব্যথার উপশম হতে পারে। চলুন তবে জেনে নি কি সেই খাবার গুলো: 

 

 

কিশমিশ ও জাফরান

পিরিয়ড চলাকালে সকালে খালি পেটে ভেজানো কিশমিশ এবং কেসার (জাফরান) খেলে পেটে ব্যথা কম হয়। পেটে ব্যথা কমাতে এবং অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ নিয়ন্ত্রণ করতে কিশমিশ উপকারী। সেই সঙ্গে পিরিয়ডের ব্যথা কমাতে কাজ করে জাফরান। 

 

ঘি 

পিরিয়ডের সময় সকাল, দুপুর আর রাত প্রতি বেলার খাবারে এক চা চামচ ঘি খাওয়ার চেষ্টা করুন। এতে করে ব্যথা অনেকটা কমে আসবে। 

 

দই ভাত

পিরিয়ডের সময়গুলোতে আপনি দই দিয়ে ভাত খেতে পারেন।দইতে ক্যালসিয়াম রয়েছে আর ভাতে রয়েছে ম্যাগনেসিয়াম এবং থায়ামিন। এগুলো পিরিয়ডের ব্যথা কমানোর জন্য কার্যকর। 

 

বাদাম

যেকোন ধরণের বাদাম বিশেষ করে কাজু বাদাম খাওয়ার চেষ্টা করুন। বাদাম পিরিয়ডের সময় আপনার পেট ব্যথা কমাতে সাহায্য করে। 

 

খিচুড়ি 

পিরিয়ড চলাকালীন রাতের খাবারে খিচুড়ি যোগ করতে পারেন। এতে করে আপনার বমি বমি ভাব দূর হবে, মুড সুইং এর সমস্যাও কমবে। সেই সাথে পেট ব্যথা কমবে। খিচুড়িতে থাকা উপাদান ওভারির সুস্থতা প্রদান করে।