Skip to content

৩রা মে, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ | শুক্রবার | ২০শে বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘গরম কমাতে বেশি গাছ লাগাতে হবে’

তীব্র তাপদাহে যখন জনজীবন বিপর্যস্ত, ফসলেও পড়ছে বৃষ্টিহীন রুক্ষতার প্রভাব, তখনই গরমের কারণ ও তা কমানোর উপায় নিয়ে ডয়চে ভেলের সঙ্গে কথা বলেছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সাবেক মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন এমপি।

বর্তমানে তিনি সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য৷

ডয়চে ভেলে: এ বছর বাংলাদেশে তীব্র তাপ প্রবাহের কারণ কী?

মো. শাহাব উদ্দিন: এটা জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবের কারণে হচ্ছে৷ সৌদি আরবে বরফ পড়ছে৷ দুবাইতে অবিশ্বাস্য রকম বৃষ্টি হলো ৷ ওভার অল সারাবিশ্বের একই পরিস্থিতি৷ ভবিষ্যতে এর প্রভাব আরো বেশি পড়বে বলে আমার মনে হচ্ছে৷

জলবায়ু পরিবর্তনের এই প্রভাব কমাতে আমাদের এককভাবে ভূমিকা রাখার কি কোনো সুযোগ আছে?

আমারা তো জলবায়ু পরিবর্তনের হুমকির মুখে আছি৷ সবারই এই হুমকি মোকাবেলায় কাজ করতে হবে৷ আমাদেরও অনেক কিছু করার আছে৷ গাছ না কেটে সবার আগে আমাদের বেশি করে গাছপালা লাগাতে হবে৷ দেখেন, ঢাকাসহ আরো অনেক জায়গায় তীব্র গরম৷ কিন্তু সিলেটে বৃষ্টি হচ্ছে৷ সেখানে এত গরম না৷ এর কারণ হলো সিলেটে গাছপালা আছে৷ আমরা যদি বেশি করে গাছপালা লাগাই তাহলে হয়ত এই তাপমাত্রা সহনীয় পর্যায়ে আসবে৷ তা না করে আমরা যদি গাছ কেটে ফেলি, তাহলে পরিস্থিতি আরো খারাপ হবে৷

আমাদের এমনিতেই গাছপালা কম৷ তার ওপরে গত তিন-চার বছরে ঢাকার গাছপালা যা ছিল তার আরো ১৫ ভাগ কমে গেছে৷ এমন কেন হচ্ছে?

যেভাবেই হোক আমরা গাছ কেটে ফেলছি৷ সামাজিক বনায়ন প্রকল্পের আওতায় সারাদেশে বেশ কিছু গাছ লাগানো হয়েছিল৷ সেগুলোও আমরা ধরে রাখতে পারছি না৷ সেগুলো ৭ থেকে ১২ বছরের মাথায় কেটে বিক্রি করে ফেলা হয়৷ যারা সামাজিক বনায়নের গাছ লাগায়, তাদের যদি সরকার অর্থ দিয়ে ওই গাছগুলো কিনে নেয়, তাহলে গাছগুলো থেকে যাবে৷ সামাজিক বনগুলো আর নষ্ট হবে না৷ এই প্রক্রিয়ায় আমাদের সামাজিক বনায়ন বাড়াতে হবে৷

আমরা ঢাকা শহরেও কিছু দিন আগে উন্নয়নের নামে গাছ কাটতে দেখেছি…

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা আছে- পরিবেশ রক্ষা করেই উন্নয়ন করতে হবে৷ পরিবেশ ধ্বংস করে উন্নয়ন নয়৷ পরিবেশ বাঁচাতে হবে, উন্নয়নও করতে হবে ৷ এখন মন্ত্রণালয়গুলোকে সেভাবেই কাজ করতে হবে৷ পরিকল্পনা করতে হবে৷ সেটা না হলে তো হবে না৷

এই তাপ প্রবাহ তো একটা দুর্যোগ৷ মানুষের উৎপাদনশীলতা কমে৷ কৃষি ক্ষতিগ্রস্ত হয়৷ বন্যা, ঘুর্ণিঝড়ের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগে দেখি ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা করা হয়৷ কিন্তু তাপ প্রবাহে সেই উদ্যোগ নেই কেন?

হ্যাঁ এখানেও ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সহায়তা দরকার৷ সবার এগিয়ে আসা উচিত৷ সরকারের তো ফান্ড আছে বন্যা, ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তার জন্য৷ আমার মনে হয় সেই ফান্ড এখানে ব্যবহার করা যায়৷ তাপপ্রবাহে ক্ষতিগ্রস্তদের সেখান থেকে সহায়তা দেয়া দরকার৷

ঢাকা এবং আশপাশে পাঁচ ধরনের বিষাক্ত গ্যাস তৈরি হচ্ছে যা গরম বাড়াচ্ছে…

হ্যাঁ, এরমধ্যে আছে ইটভাটা৷ ইটভাটা তো সারাদেশেই বিষাক্ত গ্যাস তৈরি করছে৷ বন্ধে নানা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে৷ আমরা পরিবেশ মন্ত্রণালয় চেষ্টা করেছি৷ অধিদপ্তরও চেষ্টা করছে৷ তারপরও তো থামানো যাচ্ছে না৷ আর গাড়ির কালো ধোঁয়া, উন্নয়নমূলক কাজের সময় সঠিক নিয়মে না করায় বাতাস দূষিত হয়৷ ভবন নির্মাণের সময় একই অবস্থা হয়৷ অনেক দপ্তর আছে এগুলো দেখার জন্য৷ আর আমাদের সচেতনতার অভাব আছে৷ আমরা নিজেরাও আসলে পরিবেশ রক্ষা করে কাজ করার চেষ্টা করি না৷

জলবায়ু , তাপ প্রবাহ এসব নিয়ে সার্বিক পরিকল্পনা ও সমন্বিত কাজের দরকার আছে?

হ্যাঁ, দরকার আছে৷ এই গরমে ঢাকা নারায়ণগঞ্জে সড়কে পানি ছিটানো হচ্ছে৷ সেটা ভালো উদ্যোগ৷ এটা সৌদি আরবেও আমি দেখেছি৷ তবে এগুলো বিচ্ছিন্ন উদ্যোগ৷ এখন আমাদের পরিকল্পনা করে কাজ করতে হবে৷ আর ব্যাপকভাবে বনায়ন ও গাছ লাগানোর কোনো বিকল্প নেই৷

এ নিয়ে সংসদীয় কমিটির কি কোনো চিন্তা আছে?

আমরা সংসদীয় কমিটি এটা নিয়ে কাজ করবো৷ একটা নীতিমালা করার জন্য সরকারের কাছে প্রস্তাব দেবো৷

অনন্যা/এআই

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ