Skip to content

৪ঠা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | মঙ্গলবার | ১৯শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নীল পাহাড়: যে উপন্যাস পাহাড়ের গল্প বলে!

বই : নীল পাহাড়

লেখক : ওবায়েদ হক

প্রকাশক : বিদ্যানন্দ

প্রচ্ছদ : রাজিবুর রহমান রোমেল

 

 

" রঙ নীল এবং পাহাড় আমার ভীষণ প্রিয়। আর দুটো যদি একত্রে হয় তাহলে তো কথায় নেই। বলছিলাম ওবায়েদ হকের 'নীল পাহাড়' উপন্যাসটি নিয়ে। প্রথমেই বইটির নাম এবং প্রচ্ছদেই চোখ আটকে যায়। 

 

 

উপন্যাসের মূল চরিত্রে আছে অনাথ আশ্রমে বেড়ে উঠা সৎ ডাক্তার মানিক মিত্র। যার নেই নির্দিষ্ট কোনো থাকার স্থান! সততার জন্যই উপর মহল তাকে পিজি হাসপাতাল থেকে বদলি করে দেয় দুর্গম বান্দরবান এ। 
সময়টা আশির দশকের মাঝামাঝি। ক্ষমতায় তখন এরশাদ সরকার। 

 

পাহাড়ে তখন চলছে বাঙ্গালী- পাহাড়িদের, হিন্দু-মুসলিমদের সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা হাঙ্গামা। বেশির ভাগ মানুষই ডুবে আছে কুসংস্কারাচ্ছন্ন অন্ধকারে। আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থা সম্পর্কে তাদের নেই কোনো ধারণা । এমন পরিস্থিতিতে ওখানে গিয়ে ডাক্তারিতে লেগে পরে ডা. মানিক মিত্র। ঘটতে থাকে নানা রকম সাম্প্রদায়িক ঘটনা। এরমধ্যেই একদিন তার দেখা হয় পাহাড়ি মেয়ে ক্রাসিমার সাথে। ক্রাসিমা যেন হঠাৎ করে এসে আবার হারিয়ে গেলো উপন্যাসটিতে। 

 

অনাথ মানিক মিত্রের মা বাপার পরিচয় জানার প্রবল ইচ্ছা ছিল ছোট থেকে। এব্যাপারে একটা চিঠি পেয়ে সে আবার ফিরে আসে ঢাকায়। কিন্তু তাকে হতাশ হতে হয় এবারও।
যার মন পাহাড়ে পরে আছে সে কি আর কংক্রিটে মোড়ানো শহরে থাকতে পারবে! পাহাড়ের প্রতি প্রচণ্ড টানের জন্য আবার সে চলে যায় বান্দরবানে। এবার এসে মানিক পরে ভীষণ বিপদে! 

 

এই বিপদ থেকে কিভাবে উদ্ধার পেলো, ক্রাসিমার আবার দেখা মিললো কিনা আর নীল পাহাড়টা আসলেই কি ছিল বাকিটা জানতে পড়তে হবে লেখকের চমৎকার বর্ণণা সমৃদ্ধ বই নীল পাহাড়।

 

"নীল পাহাড়" বইটিতে লেখক এতো সুন্দর বর্ণনা করেছেন সব কিছুর যে বার বার পড়লেও খারাপ লাগবে না। 

 

 

লেখক মানিক ক্রাসিমার ব্যাপারগুলো এতো সুন্দর ভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন, যে ভালোবাসার প্রকাশ বা তেমন তীব্রতা না থাকলেও তা কি মায়াময় আর গভীর তা বুঝা যায় চমৎকার ভাবে। লেখকের লেখার ধরনে উপন্যাসের প্রত্যেকটি লাইনে লাইনে যেন মুগ্ধতা ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে।