রঙে রঙে ফাল্গুনের সাজ

রঙে রঙে ফাল্গুনের সাজ
রঙে রঙে ফাল্গুনের সাজ
আর বসন্তবরণকে ঘিরে শুরু হয় নানাআয়োজন, নতুন প্রজন্মের কাছে তো পহেলা ফাল্গুন মানে বেশ উৎসবমুখর এই দিনটি। এই দিনে নানারকম সাজে সেজে উঠে রমণীরা। বসন্তের প্রথমদিনে আজ নানাআয়োজনের মাঝে শাড়ি, ব্লাউজ সব জোগাড় শেষ। কিন্তু সাজের বিষয়টা সেটা মাথায় আছে তো? সেটা যদি ভুলে যান তাহলে তো সবই গেল। শাড়ি পরে সুন্দর করে একটা টিপ না পরলে তো ফাল্গুনের সাজই মাটি। তাহলে আসুন আজ আমরা ফাল্গুনের সাজের কিছু টুকিটাকি জেনে নিই। মেকআপ যেভাবেই করুন না কেন। মেকআপ করার আগে আপনার মুখের ফেসিয়াল, স্ক্রাবিং অথবা একটু ম্যাসেজ করে নিতে ভুলবেন না যেন। আগে ভালোমতো ত্বক পরিষ্কার করে নিয়ে মেকআপ করবেন।

ফুল ফুটুক আর না ফুটুক আজ বসন্ত, আজ নাহলেও বসন্ত আসছে খুব শীঘ্রই। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ভাষায়, ‘আহা, আজি এ বসন্তে/কত ফুল ফোটে, কত বাঁশি বাজে/কত পাখি গায়।’ বছরঘুরে আবার আসছে সেই ফুল ফোটার দিন, পহেলা ফাল্গুন। বসন্ত মানেই রঙের ছড়াছড়ি। শীতের জীর্ণতা সরিয়ে ফুলে ফুলে সেজে ওঠার আনন্দময় প্রস্তুতি এখন প্রকৃতিজুড়ে। তাইতো ঋতুরাজ বসন্তকে আপন করে নিতে পয়লা ফাল্গুনে বাঙালি সাজে নতুন সাজে। নারী মনে লাগে বসন্তের হলদে ছোঁয়া। নয়ন জুড়ানো প্রকৃতির এই উৎসবে শামিল হতে কেনা চায়! বসন্ত বরণের প্রস্তুতি কম-বেশি সবার মাঝেই থাকে। 

আর বসন্তবরণকে ঘিরে শুরু হয় নানাআয়োজন, নতুন প্রজন্মের কাছে তো পহেলা ফাল্গুন মানে বেশ উৎসবমুখর এই দিনটি। এই দিনে নানারকম সাজে সেজে উঠে রমণীরা। বসন্তের প্রথমদিনে আজ নানাআয়োজনের মাঝে শাড়ি, ব্লাউজ সব জোগাড় শেষ। কিন্তু সাজের বিষয়টা সেটা মাথায় আছে তো? সেটা যদি ভুলে যান তাহলে তো সবই গেল। শাড়ি পরে সুন্দর করে একটা টিপ না পরলে তো ফাল্গুনের সাজই মাটি। তাহলে আসুন আজ আমরা ফাল্গুনের সাজের কিছু টুকিটাকি জেনে নিই। মেকআপ যেভাবেই করুন না কেন। মেকআপ করার আগে আপনার মুখের ফেসিয়াল, স্ক্রাবিং অথবা একটু ম্যাসেজ করে নিতে ভুলবেন না যেন। আগে ভালোমতো ত্বক পরিষ্কার করে নিয়ে মেকআপ করবেন। তাহলে আর মেকআপ নষ্ট হবে না।
এবার জেনে নেওয়া যাক, কেমন মেকআপ করলে এই দিনের জন্যে বেশ মানাবে, পহেলা ফাল্গুনে যেহেতু দিনের বেলায়ই বেশিরভাগ বাইরে বের হওয়া হয়, তাই বেইজ মেকআপটা একটু ন্যাচারাল, স্নিগ্ধ হলেই ভালো লাগবে। আপনি নিজেও স্বস্তি পাবেন। বেইজ মেকাপের আগে অবশ্যই নিজের মুখকে মেকাপের জন্যে প্রস্তুত করে নিবেন। এজন্য মুখ ক্লিন করে, স্ক্রাবিং করে নিবেন। এরপর সানস্ক্রিন এবং ময়েশ্চারাইজার লাগাতে ভুলবেন না। ফাউন্ডেশনের আগে একটা ভালো প্রাইমার অবশ্যই লাগাবেন। যেটা আপনার ত্বকের ধরনের সাথে মানিয়ে যায়। একটি ভালো প্রাইমার আপনার মেকআপকে সারাদিন ভালো রাখতে সাহায্য করবে। ফাউন্ডেশন হিসেবে বেছে নিন ফুল কভারেজ ফাউন্ডেশন। যেহেতু আমরা একটি ন্যাচারাল বেইজ চাচ্ছি, তাই একগাদা ফাউন্ডেশনের লেয়ারের চেয়ে একটি ফুল কভারেজ ফাউন্ডেশন ভালো কাজে দেবে। কারণ ফুল কভারেজ ফাউন্ডেশন পরিমাণে কম লাগবে, ফলে আপনার অনেকবেশি ফাউন্ডেশন ব্যবহার করার প্রয়োজন পড়বে না। ভুলেও ক্রিম কন্ট্যুরিং করবেন না। দিনের বেলায় ক্রিম কন্ট্যুরিং মেল্ট হয়ে যেতে পারে। কন্ট্যুরিং পাউডার ব্যবহার করতে পারেন। ব্লাশ হিসেবে বেছে নিন, হালকা ধরনের কালার। যেমনÑ পিংক, কোরাল, পিচ ইত্যাদি কালার ভালো লাগবে। যারা পাউডার হাইলাইটার পছন্দ করেন, তারা পাউডার হাইলাইটার লাগাতে ভুলবেন না। 


আই মেকআপেও যেন স্নিগ্ধ ভাব ফুটে ওঠে, সেটা হিসেব করেই আইশ্যাডো লাগাবেন। চড়া রঙের কালারগুলো ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। কোরাল, পিচ, অরেঞ্জ, ইয়োলো, গোল্ডেন, কপার, লাইট ব্রাউন, লাইট পিংক, লাইট পার্পল, প্যারট গ্রিন কালারগুলো খুব ভালো মানিয়ে যাবে পহেলা ফাল্গুনে। আই মেকাপে আইশ্যাডো হিসেবে এই কালারগুলো ব্যবহার করতে পারেন। পহেলা ফাল্গুনে অবশ্যই টানা করে আইলাইনার লাগাবেন। আপনি চাইলে ব্ল্যাক বা ভিন্ন কালারের কাজল এবং লাইনার ও ব্যবহার করতে পারেন। এটা আই মেকাপে নতুন মাত্রা নিয়ে আসবে।  দিনের বেলা বাইরে বের হলে ফলস আইল্যাশ না পরাই ভালো। এতে দেখতে আন-ন্যাচারাল লাগতে পারে। এর বদলে আইল্যাশগুলো আইল্যাশ কার্লার দিয়ে কার্ল করে নিয়ে, কয়েক কোট মাশকারা লাগিয়ে নিবেন। পহেলা ফাল্গুনে লিপস্টিক হিসেবে হালকা রংগুলোই পারফেক্ট মনে হয়। লাইট পিংক, নুড ব্রাউন, পিংক, মওভি, টেরাকোট্টা, অরেঞ্জ, পিচ, কোরাল ইত্যাদি কালারগুলো বেশ ভালো লাগবে দেখতে। আপনি লাইট কালার ব্যবহার না করতে চাইলে রেড লিপস্টিক আপনার জন্যে ভালো অপশন। তবে চড়া কালারগুলো ব্যবহার না করাই বুদ্ধিমানের কাজ হবে। মাথায় ফুল গুঁজতে ভুলবেন না, হলুদ গাদা খোঁপায় গুঁজে নিবেন, না হয় অন্য কোনো ফুল খুবই ভালো লাগবে ফাল্গুনের লুকের সাথে। আশা করি, পহেলা ফাল্গুন সবার আনন্দে কাটবে।


মডেল : নেহা
ছবি :  তানভীর আহমেদ