দৈনন্দিন জীবনে ত্বকের যত্ন

দৈনন্দিন জীবনে ত্বকের যত্ন
ছবি: সংগৃহীত
ত্বকের যত্নে অধিক পানি পান করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন বিশেষজ্ঞরা। দৈনিক কমপক্ষে ৮ গ্লাস পানি পান করুন। এছাড়া ত্বক ফেটে যাওয়া,মরা চামড়া উঠা এসব সমস্যা থেকে রক্ষার জন্য বিভিন্ন ধরনের ঘরোয়া প্যাক ব্যবহার করা যেতে পারে।

উৎসব বা যেকোনো আয়োজনে নারীরা বেশ সাজগোজের প্রতি আগ্রহী থাকেন। উৎসব মানেই যেন নিজেকে সাজিয়ে গুছিয়ে একটু আকর্ষণীয় করে উপস্থাপন করার জোর চেষ্টা। 

 

 

চলছে পূজার আমেজ। পূজা মানেই একেক দিনের একেক সাজ। বাহারি পোশাক আর তার সাথে মানানসই মেকআপ।তবে একবার ভাবুন তো পূজার উৎসবে রোজ রোজ মুখের উপর কয়েক রকম প্রসাধনীর প্রলেপ পড়লে ত্বকের অবস্থা ঠিক কেমন হবে? অথবা যারা খুবই সাদামাটা সাজগোজ করেন বা তেমন প্রসাধনীর ব্যবহার করেনই না তারাও যখন পূজার উৎসবে মণ্ডপে ঘুরে বেড়াবেন রৌদ্র তাপের মধ্যে অথবা বন্ধুবান্ধব বা পরিবারের সাথে ঘুরতে যাবেন তখন ত্বকের উপর ধূলো বালি, রোদ তাপ, এসবে একটা প্রভাব তো রয়েই যায়। এছাড়াও নারীদের দৈনন্দিন জীবনে কর্মক্ষেত্রে হোক বা শিক্ষাঙ্গনে, অথবা জীবনের অন্যান্য ক্ষেত্রে নানান রকম আয়োজন থাকে। সবক্ষেত্রে এসব প্রভাব থেকে ত্বককে ভালো রাখার জন্য প্রয়োজন ত্বকের সঠিক যত্ন। তবে জানা যাক ত্বকের যত্নে কি কি করা যেতে পারে। 

 

 

যারা অতিরিক্ত মেকআপ ব্যবহার করেন, তারা অবশ্যই মেকআপ ভালো করে না তুলে রেখে দেওয়া উচিত নয়। কারণ মেকআপ ব্যবহারের কারণে ত্বকের লোমকূপ গুলো বন্ধ হয়ে থাকে। বেশি সময় ধরে লোমকূপ বন্ধ থাকলে ত্বকের মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। তাই অবশ্যই ঘুমানোর আগে মেকআপ ভালোভাবে তুলে ফেলতে হবে। এক্ষেত্রে ভিটামিন -ই সমৃদ্ধ কোন রিমুভার ব্যবহার করা ভালো। 

 

 

এছাড়াও যারা মেকআপ খুব ব্যবহার করেন না তাদের ক্ষেত্রেও উচিত বাইরে থেকে এসে ভালোভাবে মুখ ধুয়ে নেওয়া। কারণ সারাদিন বাইরের ধুলাবালি ত্বকে লেগে থাকা ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। তাই দিনে অন্তত তিনবার মুখ ধুয়ে নেওয়া ভালো। অনেক সময় ত্বক ধোয়ার পর পিএইচ ভারসাম্য কমে যায়। তাই পিএইচ ভারসাম্য ঠিক রাখতে ত্বক ধোয়ার পর ভালো কোন টোনার বা ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিত।

 

 

ত্বকের যত্নে অধিক পানি পান করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন বিশেষজ্ঞরা। দৈনিক কমপক্ষে ৮ গ্লাস পানি পান করুন। এছাড়া ত্বক ফেটে যাওয়া,মরা চামড়া উঠা এসব সমস্যা থেকে রক্ষার জন্য বিভিন্ন ধরনের ঘরোয়া প্যাক ব্যবহার করা যেতে পারে। যেমন : টক দইয়ের সাথে মধু মিশিয়ে, অ্যালোভেরার সাথে গোলাপজল মিশিয়ে সপ্তাহে একদিন করে মালিশ করা যেতে পারে। 

 

 

আঙ্গুর ব্যতীত অন্য যেকোনো ফল ত্বকে মালিশ করা যেতে পারে। অনেকের চোখের নিচে কালো দাগ পড়ে যায় নানা কারণে। সেক্ষেত্রে টমেটো, আলু, শসা ব্লেন্ড করে ব্যবহারে করলে কালো দাগ কমে যায়। যাদের নিয়মিত বাইরে থাকতে তারা নিজের ত্বকের ধরণ অনুযায়ী সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে পারে। তবে সানস্ক্রিন পাঁচ ঘন্টার বেশি রাখা উচিত নয়।প্রয়োজনে পাঁচ ঘন্টার মধ্যে ধুয়ে আবার ব্যবহার করা যেতে পারে। 
এসব নিয়ম মেনে ত্বকের যত্ন করলে ত্বক সুস্থ ও সুন্দর রাখা যায়।