১০ মাসে ধর্ষণের শিকার ১১৭৮ নারী!

১০ মাসে ধর্ষণের শিকার ১১৭৮ নারী!
ছবিঃ সংগৃহীত
পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ১০ মাসে ১ হাজার ১৭৮ জন নারীকে ধর্ষণ করা হয়েছে। যার মধ্যে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করা হয়েছে ২২০ জনকে এবং ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে ৪৩ জন নারীকে। এছাড়াও গত ১০ মাসে ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে ২৭৬টি। ১১৬ জন নারী যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন। তাদের মধ্যে আত্মহত্যা করেছেন ১০ জন।

আমাদের সমাজে নারী নির্যাতন নতুন কোনো বিষয় নয়৷  নির্যাতনের শেকলে যুগের পর যুগ বাঁধা পরে আছে নারীরা। সমাজ অনেকটাই আধুনিক হলেও নারীরা এখনো বৈষম্য ও নির্যাতনের শিকার।  যার প্রমাণ আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক) এর একটি পরিসংখ্যান। যেখানে দেখা যায় গত ১০ মাসে ১১৭৮ নারীকে ধর্ষণ করা হয়েছে। 


আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে ২৫ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একটি পরিসংখ্যান তুলে ধরে এসব তথ্য জানানো হয়। 


পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ১০ মাসে ১ হাজার ১৭৮ জন নারীকে ধর্ষণ করা হয়েছে। যার মধ্যে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করা হয়েছে ২২০ জনকে এবং ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে ৪৩ জন নারীকে। এছাড়াও গত ১০ মাসে ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে ২৭৬টি। ১১৬ জন নারী যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন। তাদের মধ্যে আত্মহত্যা করেছেন ১০ জন।


গত ১০ মাসে  স্বামীর হাতে খুন হয়েছেন ১৯৭ জন নারী। আর পারিবারিক সহিংসতার জেরে ১২৮ জন নারী আত্মহত্যা করেছেন। যৌতুককে কেন্দ্র করে শারীরিক নির্যাতন করা হয়েছে ১০১ জনকে এবং নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে ৬৩ জনকে।


এসব পরিসংখ্যান তুলে ধরে আসক জানায়, এতো এতো নির্যাতন, হত্যা, ধর্ষণ হওয়া সত্ত্বেও  আইনের আশ্রয় নিতে পারেনি বহু নারী। আবার অনেকে আইনের সাহায্য চাইলেও সহায়তা পাননি। তাইতো নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধে এবং ন্যায় বিচার সুনিশ্চিত করতে আসক বেশ কিছু দাবিও উপস্থাপন করে।