মেয়েদের লেখাপড়ার অনুমতি দিল তালেবান

মেয়েদের লেখাপড়ার অনুমতি দিল তালেবান
ছবি: সংগৃহীত
জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা- ইউনিসেফ জানিয়েছে, তালেবান সরকার আফগানিস্তানের পাঁচটি প্রদেশের গার্লস স্কুলগুলো খুলে দিয়েছে।  এই পাঁচ প্রদেশ হচ্ছে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় বালখ, জুযজান ও সামানগান, উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় কুন্দুজ এবং দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় উরুজগান।

তালেবানের আফগানিস্তান নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার পর থেকেই দেশটির নারীদের উপর চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে নানান বিধিনিষেধ। নানান পেশার নারীরা নিজেদের আত্মগোপনে রেখেছে। মেয়েদের পড়াশোনা নিয়েও চলছিল নানান জল্পনা কল্পনা। এই অবস্থায় সম্প্রতি তালেবান সরকার আফগানিস্তানের ৫ টি প্রদেশে মেয়েদের স্কুল খুলে দিয়েছে। 

 

জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা- ইউনিসেফ জানিয়েছে, তালেবান সরকার আফগানিস্তানের পাঁচটি প্রদেশের গার্লস স্কুলগুলো খুলে দিয়েছে।  এই পাঁচ প্রদেশ হচ্ছে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় বালখ, জুযজান ও সামানগান, উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় কুন্দুজ এবং দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় উরুজগান।

 

গত সপ্তাহে ইউনিসেফের উপ-প্রধান ওমর আবদি কাবুল সফর শেষ করে নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের সদর দপ্তরে পৌঁছে সাংবাদিকদের বলেন, আফগানিস্তানের মোট ৩৪ প্রদেশের মধ্যে পাঁচটির গার্লস স্কুলগুলো খুলে দিয়েছে তালেবান।

 

তিনি আরো বলেন, তালেবান শিক্ষামন্ত্রী তাকে জানিয়েছেন, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের মেয়েরা যাতে স্কুলে যেতে পারে সে লক্ষ্যে তালেবান সরকার একটি ‘গঠনকাঠামো’ ঠিক করার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। আগামী এক থেকে দু’মাসের মধ্যে এ কাজ সম্পন্ন হলে সকল আফগান ছাত্রী স্কুলে যেতে পারবে।

 

সেপ্টেম্বর মাসে আফগানিস্তানে তালেবান একটি অন্তর্বর্তী সরকার গঠন করার ঘোষণা দিলেও তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেয়নি এখন পর্যন্ত কোনো দেশ। মেয়েদের লেখাপড়া করার অনুমতি না দেওয়া হচ্ছে যেসব গুরুত্বপূর্ণ কারণ দেখিয়ে আন্তর্জাতিক সমাজ তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দিচ্ছে না সেগুলোর মধ্যে অন্যতম।