পৃথিবীর কনিষ্ঠতম মা

পৃথিবীর কনিষ্ঠতম মা
লিনা মেডিনা
এতো অল্প বয়সে একজন শিশু কীভাবে গর্ভধারণ করতে পারে- এই প্রশ্ন জন্ম নেয় সবার মনে। চিকিত্‍সা বিজ্ঞানের মতে, ব্যাপারটি একদমই অসম্ভব। ৫ বছর হওয়ার আগেই অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছিল লিনা! চিকিৎসা বিজ্ঞানে এর আগে এমন উদাহরণ ছিল না।

একজন নারীর জন্ম দেবার ক্ষমতা প্রকৃতির একটি সুন্দর উপহার। মা হওয়াকে নারী জীবনের সৌভাগ্যের ব্যাপার হিসেবে ধরা হয়। মা হওয়ার কোন ধরা- বাধা সময়কাল না থাকলেও ২০-৪০ বছরকে স্বাভাবিক ধরা হয়। তবে ২০ এর কম বয়সে ও ৪০ এর বেশি বয়সেও অনেক নারীরা গর্ভধারণ করেছেন এবং সুস্থভাবেই সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। 

 

তবে সন্তান জন্মদানের বয়সসীমায়ও রয়েছে কিছু আশ্চর্য। এরমধ্যে সবচেয়ে বিস্ময়কর হল লিনা নামক এক মেয়ের গর্ভধারণ। মাত্র পাঁচ বছর বয়সে গর্ভধারণ করে তিনি হয়েছেন বিশ্বের কনিষ্ঠতম মা। বিষয়টা কতটা আজব ভাবুন তো একবার! যে বয়স পুতুল খেলায় ব্যস্ত থাকার কথা, সেসময় সে নিজেই এক শিশুর মা হয়ে বসে আছেন। যে বয়সে শিশু ঠিকমত নিজের কাজগুলোও গুছিয়ে করতে পারে না। আর সে বয়সেই গর্ভে সন্তান বড় করেছে লিনা মেডিনা।

 

পেরুর হানকেভ্যালিকায় থাকতেন লিনা মেডিনা। ১৯৩৯ সালে মাত্র ৫ বছর ৭ মাস ২১ দিন বয়সে প্রথম সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন তিনি। বাবা ছিলেন টিবুরেলো মেদিনা এবং মা ভিক্টোরিয়া লোসিয়া। লিনারা ছিলেন ৯ ভাই-বোন। ৭ হাজার ৪০০ ফুট ওপরে পাহাড়ের চূড়ায় পরিবারের সাথে থাকতো লিনা। অন্যান্য ভাইবোন ও স্বাভাবিকভাবেই বয়সের তুলনায় একটু দ্রুতই বৃদ্ধি পাচ্ছিলো লিনার শরীর। তার অস্বাভাবিক শারীরিক বৃদ্ধি প্রায় সবারই নজরে আসে। 

 

এর মধ্যেই লিনার যখন পাঁচ বছর বয়স, তখন হঠাৎ করেই বেশ অস্বাভাবিক বিষয় খেয়াল করেন তার পরিবার। পেটের অস্বাভাবিক বৃদ্ধি দেখে তারা মনে করেছিলো পেটে হয়তো টিউমার হয়েছে লিনার। তাই তারা মেয়েকে নিয়ে আসলেন ডাক্তারের কাছে। কিন্তু আল্ট্রাসোনোগ্রামের রিপোর্ট চমকিয়ে দিলো সবাইকে। রিপোর্ট দেখে ডাক্তার জানায় সে সাত মাসের গর্ভবতী। এমন খবরে লিনার বাবা-মায়ের মুখের ভাষাও হারিয়ে যায়।

 

পরবর্তীতে সিজারিয়ান সেকশনের মাধ্যমে আড়াই কেজির বেশি ওজনের একটি সুস্থ ছেলে সন্তানের জন্ম দেয় লিনা। এত অল্প বয়সে সন্তান জন্ম দেবার মতো উপযুক্ত পেলভিস তার ছিলোনা। তারা মা ছেলে সুস্থভাবেই জীবন পার করেছিলেন। ৪০ বছর বয়সে লিনার ছেলে রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। তবে লিনা এখনো বেঁচে আছেন।

 

এতো অল্প বয়সে একজন শিশু কীভাবে গর্ভধারণ করতে পারে- এই প্রশ্ন জন্ম নেয় সবার মনে। চিকিত্‍সা বিজ্ঞানের মতে, ব্যাপারটি একদমই অসম্ভব। ৫ বছর হওয়ার আগেই অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছিল লিনা! চিকিৎসা বিজ্ঞানে এর আগে এমন উদাহরণ ছিল না। কারণ কম করে হলেও সাধারণত একজন নারীর পিরিয়ড শুরু হয় ১১-১২ বছর বয়সে। পিরিয়ড শুরু হওয়ার আগে নারী সন্তান জন্মদানের জন্য প্রস্তুত থাকে না। এরপর চিকিত্‍সক তার মায়ের সঙ্গে কথা বলে জানতে পারেন, লিনার মাত্র ৩ বছর বয়স থেকেই পিরিয়ড শুরু হয়েছিল! শুধু তাই নয়, চার বছর বয়স থেকেই তার স্তনের পূর্ণাঙ্গ বিকাশ হতে থাকে। বয়স যখন পাঁচ বছরের মাঝামাঝি তখন তাকে গর্ভবতী মায়ের মতো দেখায়। ডাক্তারের কাছে গেলে ডাক্তার দেখতে পায় তার মাঝে মা হবার পূর্ণ যোগ্যতা ও সামর্থ্য আছে।

 

লিনা গর্ভবতী হওয়ার পর তার বাবাকে সন্দেহ করা হয়েছিলো। তার বাবাকে গ্রেফতারও করেছিল পুলিশ। কিন্তু তার বিরুদ্ধে কোন প্রমাণ না মেলায় ছেড়েও দেয়া হয়। আর লিনাও সেসময়ে এতো ছোট ও অবুঝ ছিল যে সেও পরিষ্কার করে কিছু বলতে পারেনি। তাই নিলার গর্ভধারণের এই রহস্য রহস্যই থেকে গেছে আজও।