সন্তানের অনলাইন ক্লাস, মা-বাবাকে হতে হবে দায়িত্বশীল

প্রতীকী ছবি
করোনাকালীন সময়ে সন্তানকে শিক্ষা নিতে বাড়িতে বসেই উপস্থিত থাকতে হয় অনলাইন ক্লাসে। আগের সেই শ্রেণিকক্ষের পরিবেশ, শিক্ষক আর বন্ধুদের উপস্থিতি কিংবা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, কোনোটাই এখন পাচ্ছেন না আমাদের সন্তানরা। তাই এই পরিস্থিতিতে এসবের সেই অনুপস্থিতি সামাল দিতে হবে আপনাকেই। সন্তানের পড়ার অভ্যাস ধরে রাখাটাই এখন আপনার সবচেয়ে বড় দায়িত্ব।

করোনার সংক্রমণের ফলে বদলে গেছে পুরো পৃথিবী। সেই সঙ্গে বদলেছে মানুষের জীবনধারা, কাজের প্রক্রিয়া এমনকি শিশুদের শিক্ষা পদ্ধতিও। আগে যেখানে সন্তানদের ক্লাস বলতেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শ্রেণি কক্ষে উপস্থিত থেকে শিক্ষা নেয়াকে বোঝাতো, করোনা সংক্রমণ এড়াতে এবং লকডাউন পরিস্থিতিতেও শিক্ষা কার্যক্রম সচল রাখতে এখন সেখানে জায়গা করে নিইয়েছে অনলাইন ক্লাস।

 

করোনাকালীন সময়ে সন্তানকে শিক্ষা নিতে বাড়িতে বসেই উপস্থিত থাকতে হয় অনলাইন ক্লাসে। আগের সেই শ্রেণিকক্ষের পরিবেশ, শিক্ষক আর বন্ধুদের উপস্থিতি কিংবা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, কোনোটাই এখন পাচ্ছেন না আমাদের সন্তানরা। তাই এই পরিস্থিতিতে এসবের সেই অনুপস্থিতি সামাল দিতে হবে আপনাকেই। সন্তানের পড়ার অভ্যাস ধরে রাখাটাই এখন আপনার সবচেয়ে বড় দায়িত্ব।

 

তবে সুখের বিষয় হচ্ছে, করোনার আগে যেখানে অনলাইন ক্লাসের সঙ্গে কোনো শিশুই পরিচিত ছিল না, সেখানে অনলাইন শিক্ষা সম্পর্কে এখন বেশিরভাগ শিশুই জানে। তাই তারা যেন সঠিক সময়ে ক্লাসে যোগ দিতে পারে, প্রাথমিকভাবে সেদিকেই লক্ষ্য রাখুন। আবার ক্লাসে শিক্ষকদের সঙ্গে যোগাযোগ থেকে শুরু করে নোট নেওয়া, শিক্ষকদের নির্দেশনা বুঝে উঠা ইত্যাদি ক্ষেত্রে তারাও বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে। এসব বিষয়ে তাদের সাহায্য করুন।

 

আপনার সন্তানরা এখন অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে প্রযুক্তির সঙ্গে ধীরে ধীরে পরিচিত হচ্ছে। তাদের এই প্রযুক্তির সঠিক প্রয়োগ শেখানোর দায়িত্ব মা-বাবারই। তাই ক্লাসের বাইরেও যে ইন্টারনেটের একটা বিশাল জগত রয়েছে, সে সম্পর্কে তাদের ধারণা দিতে চেষ্টা করুন। চেষ্টা করুন তারা কোনো সমস্যার সম্মুখীন হলে বা কিছু জানতে চাইলে যেন তা নিজেই অনলাইন ঘেঁটে সমাধান করতে পারে, সেটা শেখাতে। তাদের এ বিষয়ে উৎসাহ দিন।

 

ছোটবেলার বর্ণ পরিচয় থেকে করোনার আগ পর্যন্ত আপনার সন্তান হাতে নিয়েই সব বই পড়তে অভ্যস্ত। কিন্তু অনলাইনেও রয়েছে এ সকল বইয়ের এক বিশাল ভাণ্ডার। তাদের সেখানে বই পড়তে আগ্রহী করে তুলুন। নিজের চারপাশের খবর স¤পর্কে আপডেট থাকা যেকোনো বয়সে জরুরি। এই মুহূর্তে যখন আপনার বাড়িতে খবরের কাগজ পৌঁছাচ্ছে না, সেক্ষেত্রে আপনার সন্তানকে অনলাইন খবর পড়তে শেখান। স্কুলের কোনো প্রজেক্টের ডিজাইন যদি আপনার সন্তান অনলাইন করতে চায়, সেখানে তাকে সাহায্য করুন। গান, নাচ, আঁকা, আবৃত্তির মতো বিভিন্ন বিষয়ে বিশ্বজুড়ে অনলাইন ক্লাসের ব্যবস্থা থাকে।

 

পড়াশোনার পাশাপাশি যেকোনো মাধ্যমে অনলাইন ক্লাস করাতে সন্তানকে উৎসাহ দিন, হোক সেটা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্লাস আর হোক ইউটিউবের অনলাইন ক্লাস বা টিউটোরিয়াল। ইন্টারনেট ব্যবহার করে মানুষকে কতটা সমৃদ্ধ করতে পারে, সে বিষয়গুলো নিয়ে সন্তানদের ধারণা দিন। এর মধ্য দিয়েই আপনার সন্তান ধীরে ধীরে প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহারের শিখে নিবে।