লকডাউনে ঘরে বসে কাজ করে চোখে অস্বস্তি? 

লকডাউনে ঘরে বসে কাজ করে চোখে অস্বস্তি? 
লকডাউনে ঘরে বসে কাজ করে চোখে অস্বস্তি? 
তুলসী এবং পুদিনা পাতা চোখের জন্য খুবই উপকারী। একটি পাত্রে সারা রাত বেসিল ও পুদিনা পাতা ভিজিয়ে রেখে দিন।

সর্বাত্মক কঠোর লকডাউনে বন্ধ আছে সরকারী, বেসরকারি সব অফিস আদালত। তাই বেশিরভাগ প্রাইভেট অফিসের কর্মীরা বাড়িতে বসে কাজ করছেন। এর ফলে দিনের অধিকাংশ সময় ল্যাপটপ বা কম্পিউটারের দিকে তাকিয়ে থাকতে হচ্ছে। সাথে মোবাইল ফোন তো আছে। মোবাইলের ব্যবহার আমাদের জীবনকে সহজ করে দিলেও দিন শেষে চোখের বড় ক্ষতি হচ্ছে তা হয়তো অনেকেই বুঝতে পারছি না।


অনেকেই আছে যারা চোখে ব্যথা অনুভব করেন। আবার অনেকের চোখ দিয়ে পানি পড়ে বা চোখ চুলকায়। এই পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পেতে চোখের ড্রপ বা বিভিন্ন ওষুধ ব্যবহার করেন। কিন্তু ওষুধ ছাড়াও যে ঘরোয়া কিছু উপায়ে এই সমস্যা দূর করা সম্ভব তা হয়তো আমরা জানি না। 


সাধারণ সময়ে বন্ধুবান্ধব, আত্মী-স্বজনের  সঙ্গে দেখা হলে, বাইরে হাটাহাটি করলে কিছুটা সময় হলেও দূরে থাকে মোবাইল ফোন। কিন্তু করোনাকালে সে সুযোগ নেই। এখন প্রশ্ন হল কীভাবে চোখ ভালো রাখবেন?


জেনে নিন কি করবেন,


ঠাণ্ডা পানি: দীর্ঘক্ষণ কম্পিউটার বা মোবাইলের স্ক্রিনের সামনে তাকিয়ে থাকলে চোখে ব্যথা হওয়া স্বাভাবিক।এই পরিস্থিতিতে কিছু সময় পর পর ঠাণ্ডা পানির ঝপাটা দিন। এর ফলে চোখের তাপমাত্রা কমবে এবং অস্বস্তি থেকে মুক্তি পাবেন। এক থেকে দেড় মিনিট ধরে চোখের পানির ঝাপটা দিতে পারেন।


গোলাপ জল: কোনও জ্বালা কমাতে গোলাপ জল খুবই উপকারী। এমনকি চোখের ব্যথা কমাতেও খুবই উপকারী গোলাপ জল। পানির সাথে গোলাপ পানি মিশেয়ে তুলা দিয়ে চোখে ব্যবহার করুন।  ভেজানো তুলা কিছুক্ষণ চোখের উপরে রাখতে পারেন। 

 

তুলসী ও পুদিনা পাতা: তুলসী এবং পুদিনা পাতা চোখের জন্য খুবই উপকারী। একটি পাত্রে সারা রাত বেসিল ও পুদিনা পাতা ভিজিয়ে রেখে দিন। সকালে উঠে সেই পানিটি দিয়ে চোখ ধুয়ে ফেলুন। চোখের ব্যথা অনেকটাই কমবে।