লকডাউনে রোজা, নিন আগাম প্রস্তুতি!

লকডাউনে রোজা, নিন আগাম প্রস্তুতি!
লকডাউনে রোজা, নিন আগাম প্রস্তুতি!
রোজার সময় ইফতারে পুষ্টিকর খাবারগুলো রাখার চেষ্টা করবেন। ফলমূল জাতীয় খাবার কিনে ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন। যাতে রোজা রেখে এগুলো কিনতে বাইরে যেন যেতে না হয়। এসময় শখের জিনিসপত্র কিংবা শপিং করতে চাইলে অনলাইনে করার চেষ্টা করুন।

কিছুদিন বাদেই আসছে রোজা। কিন্তু এরই মধ্যে প্রকোপ বেড়েছে করোনা ভাইরাসের।শুরু হয়েছে সেকেন্ড ওয়েভ। শনাক্ত এবং মৃত্যুর সংখ্যা ক্রমশ বেড়েই চলছে। পাশাপাশি চলছে লকডাউনও। রয়েছে অপ্রয়োজনে ঘরের বাইরে যাওয়ার নিষেধাজ্ঞা।লকডাউনের মধ্যেই এবার রোজার শুরু। তাই  খুব সচেতনভাবে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হবে। 

 

অযথা বাইরে যাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। রোজার সময়টায় বাইরে না যাওয়ার নির্দেশনাগুলো মেনে চলার চেষ্টা করতে হবে। তবে দৈনন্দিন যেসব জিনিসপত্র কেনা প্রয়োজন সেগুলো রোজা আসার আগেই সেরে রাখুন। সম্ভব হলে অনলাইন থেকে কিনে ফেলুন। অনলাইনে না হলে যথাসম্ভব স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো কিনে রাখুন। 

 

লকডাউন থাকার কারণে দোকানপাট দ্রুত বন্ধ হয়ে যায়। তাই প্রয়োজনীয় মশলাপাতি বা অন্যান্য খাবারের একটা তালিকা তৈরি করে সব কিনে রাখুন। কারণ হঠাৎ করে কিছু শেষ হয়ে গেলে দোকান খোলা নাও পেতে পারেন। স্বাভাবিকভাবেই এইসময় দোকান আগে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। তাই আগে থেকেই সব গুছিয়ে রাখুন।

 

রোজার সময়টা আমরা সবাই কমবেশি ক্লান্ত থাকি। এসময় ঘরের বাড়তি কাজ করার মত এনার্জিও হয়ে ওঠে না। তাই ঘরের কাজগুলো রোজা আসার আগেই চাপিয়ে ফেলার চেষ্টা করুন। 

 

রোজার সময় ইফতারে পুষ্টিকর খাবারগুলো রাখার চেষ্টা করবেন। ফলমূল জাতীয় খাবার কিনে ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন। যাতে রোজা রেখে এগুলো কিনতে বাইরে যেন যেতে না হয়। এসময় শখের জিনিসপত্র কিংবা শপিং করতে চাইলে অনলাইনে করার চেষ্টা করুন। কারণ যত জনসমাগম এড়িয়ে চলবেন ততই আপনার এবং আপনার পরিবারের জন্য মঙ্গল হবে। তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে সচেতনতা অবলম্বন করে রোজার মাসটা পার করার প্রস্তুতি নিন এখন থেকেই।