সুস্থ শরীরের জন্য এড়িয়ে চলুন বাসি খাবার

সুস্থ শরীরের জন্য এড়িয়ে চলুন বাসি খাবার
সুস্থ শরীরের জন্য এড়িয়ে চলুন বাসি খাবার
মুরগির মাংস  অনেকেই এক দিন রান্না করে  ফ্রিজে রেখে দেন। কিন্তু মুরগির মাংস ফ্রিজে রেখে দিয়ে বারবার গরম করলে এতে থাকা প্রোটিনের কম্পোজিশন অনেকটাই পাল্টে যায়। যা থেকে হতে পারে বদহজম। 

একটা সময় আমাদের নানী দাদীরা প্রতিবেলার জন্য রান্না করতেন। তখন ফ্রিজ কিংবা মাইক্রোওভেন ছিল না। এখন জীবনযাপন সহজ হয়েছে।  হাতের কাছে নানান সামগ্রী।  একবেলায় রান্না করে ফ্রিজে রেখে দিন। বাস প্রতিবেলায় রান্নার ঝক্কিটাও আর পোহাতে হয় না। কিন্তু  এইযে সহজ জীবন যাপনের পাল্লায় পড়ে  বাসি খাবার খাওয়া হচ্ছে, তা শরীরের পক্ষে তো একেবারে স্বাস্থ্যসম্মত নয়। এমনকি কিছু কিছু খাবার আছে যা একেবারেই বাসি খাওয়া উচিত নয়। চলুন তবে জেনে নি সেই খাবার গুলো কি কি? 

 

 

মুরগির মাংস

 

মুরগির মাংস  অনেকেই এক দিন রান্না করে  ফ্রিজে রেখে দেন। কিন্তু মুরগির মাংস ফ্রিজে রেখে দিয়ে বারবার গরম করলে এতে থাকা প্রোটিনের কম্পোজিশন অনেকটাই পাল্টে যায়। যা থেকে হতে পারে বদহজম। 

 

ডিম সিদ্ধ

 

অনেকেই আবার ডিম সিদ্ধ করেও রাখেন। ডিমের মধ্যে অনেক বেশি পরিমাণে প্রোটিন থাকায় একবার গরম করে ফ্রিজে রাখলে তাতে টক্সিন তৈরি হতে পারে, যার ফলে আমাদের সহজেই বদহজম হতে পারে। 

 

আলু

 

এই রমজানেই প্রতিদিন ইফতার আয়োজনে চপ রাখেন অনেকেই। আর সেই চপ বানাতে গিয়ে দেখা যায় একদিন আলু বেশ খানিকটা সিদ্ধ করে বা সিদ্ধ করা আলু একটু বেচে গেলে তা ফ্রিজে রেখে দেন পরদিনের জন্য । এই ঠাণ্ডা আলুতে তৈরি হয় এক ধরনের ব্যাকটেরিয়া, যার নাম বটুলিজম। বারবার গরম করলে এই ব্যাকটেরিয়া অনেক বেড়ে যেতে পারে। এর থেকেই হতে পারে বদহজম, অম্বল ও পেটের নানা সমস্যা। 

 

ভাত

 

সকালবেলা হয়তো কাজের লোক রান্না করে দিয়ে চলে গেল। এরপর আর নতুন করে ভাত বানানোর কোন দরকার কেউ মনে করেন না। আবার সেই ভাত অনেকেই অনেকবার গরম করে খেয়ে নিচ্ছেন দরকারমত। কিন্তু আমরা অনেকেই জানি না যে বারবার ভাত গরম করে খেলে সেই ভাতের মধ্যে বেসিলস সিরিয়াস ব্যাকটেরিয়া উৎপন্ন হয়, যা আমাদের শরীরে ডায়রিয়া পর্যন্ত সৃষ্টি করতে পারে। 

 

তাই নিজের শরীরকে সুস্থ রাখতে বাসি খাবার না খেয়ে একটু নাহয় কষ্ট করে  রোজকার খাবারটা রজ তৈরি করে নিন।