হাড় ভালো রাখতে করণীয়

হাড় ভালো রাখতে করণীয়
হাড় ভালো রাখতে করণীয়
হাড় ভালো রাখতে সবুজ পাতাওয়ালা সবজি, সয়াবিন,তিল, স্প্রাউটস এবং কুমড়োর বীজ খেতে পারেন। এছাড়াও ধূমপান,অ্যালকোহল এবং লাল মাংস থেকে দূরে থাকুন।

জীবনে একটা পর্যায়ে এসে আমরা শারীরিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়ি৷ভুগতে হয় নানা সমস্যায়। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কমতে থাকে হাড়ের জোর। উঠতে- বসতে অনুভূত হয় ব্যথা। বিশেষজ্ঞদের এই বিষয়ে রয়েছে নানা পরামর্শ। চলুন তবে জানি হাড় ভালো রাখতে আমাদের করণীয় কি- 

 

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অধিকাংশেরই অস্টিওআর্থ্রাইটিস জাতীয় সমস্যা দেখা দেয়।  এসময় সামুদ্রিক মাছ, ফ্ল্যাক্সসিড,সবুজ সবজি, আখরোট, সয়াবিন এবং বিভিন্ন ডালে থাকা ওমেগা-৩-ফ্যাটি অ্যাসিড হাড়ের জয়েন্টের ব্যথা এবং ইনফ্ল্যামেশন কমাতে সাহায্য করে।

 

শরীরের ওজন বৃদ্ধি পেলে অনেকসময় কোমর, হাঁটু ও গোড়ালিতে বেশি ভর পরে। তাই বাড়তি ওজন কমিয়ে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা হাড়ের সংযোগস্থলের ওপর চাপ কমায়। এতে হাড়ের সমস্যা অনেকাংশেই কম হয়। হাড় ভালো থাকে। 

 

হাড় ভালো রাখতে সবুজ পাতাওয়ালা সবজি, সয়াবিন,তিল, স্প্রাউটস এবং কুমড়োর বীজ খেতে পারেন। এছাড়াও ধূমপান,অ্যালকোহল এবং লাল মাংস থেকে দূরে থাকুন। এসব হাড়ের জন্য ক্ষতিকারক।

 

খাদ্যাভ্যাসের পরে হাড় ভালো রাখতে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন শরীর চর্চা। তাই নিয়মিত শরীরকে সচল রাখতে চলাফেরা ও অনুশীলন করা জরুরি। তবে ব্যায়ামের সময় হাড় ও সংযোগস্থলের যেন কোন আঘাত না লাগে সেদিকে খেয়াল রেখে সতর্কতার সঙ্গে যতটা সম্ভব নিয়মিত শরীর চর্চা করার।সঠিক পদ্ধতিতে ব্যায়াম শারীরিক সুস্থতায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।