নবমীর সাজ হবে আকর্ষণীয়

নবমীর সাজ হবে আকর্ষণীয়
ছবি:সংগৃহীত
নবমীর সাজে সকালের দিকে শাড়ি পরতে পারেন কিন্তু তার মানে এই না যে লাল পাড় সাদা শাড়িই পড়তে হবে। হালকা রঙের বা উজ্জ্বল রঙের কোনও শাড়ি পরতে পারেন, সঙ্গে অবশ্যই মানানসই ব্লাউজ পরতে হবে। সকালের দিকে একটু গরম থাকলে সুতি, লিনেন,খাদি বা হ্যান্ডলুমের শাড়ি পরতে পারেন। শাড়ি পরতে না চাইলে কামিজ, কুর্তি অথবা লং গাউনও পড়তে পারেন।

দুর্গা পুজোর নবমীর সাজ হবে বাকি দিনগুলোর থেকে একটু অন্য রকম। নবমী পূজার প্রায় শেষ দিকে তাই এই দিনে সবাই নিজেকে আরও বেশি সুন্দর ও আকর্ষণীয় দেখাতে চায়। এ দিন সকালে মণ্ডপে যাওয়া এবং অঞ্জলি দেওয়ার সময় সাজে ন্যাচারাল লুক ধরে রেখে নিজেকে সাজাতে হবে। কিন্তু সন্ধ্যায় সাজে জমকালো ভাব রাখলেই ভালো দেখাবে। চলুন দেখে নেওয়া যাক, দুর্গা পুজোর নবমীর দিন-রাত্রির সাজগোজ।


নবমীর সাজে সকালের দিকে শাড়ি পরতে পারেন কিন্তু তার মানে এই না যে লাল পাড় সাদা শাড়িই পড়তে হবে। হালকা রঙের বা উজ্জ্বল রঙের কোনও শাড়ি পরতে পারেন, সঙ্গে অবশ্যই মানানসই ব্লাউজ পরতে হবে। সকালের দিকে একটু গরম থাকলে সুতি, লিনেন,খাদি বা  হ্যান্ডলুমের শাড়ি পরতে পারেন। শাড়ি পরতে না চাইলে কামিজ, কুর্তি অথবা লং গাউনও পড়তে পারেন।


সকালের মেকআপ কিন্তু একদম চড়া হবে না আবার একদম ভারীও হবে না। মুখ ভাল করে পরিষ্কার করে ত্বকের ধরণ অনুযায়ী ময়েশ্চারাইজারের সাথে ফাউন্ডেশন মিক্স করে ভালো ভাবে বেন্ড করে নিয়ে লুস পাউডার দিয়ে মেকআপ সেট করে নিন। চোখে উইংড আইলাইনার লাগাতে পারেন। পূজাতে আইলাইনার অনেক বেশি মানায়। গালে হালকা করে পিচ ব্লাশ অন লাগাতে পারেন আর ঠোঁটে লাগান গোলাপি অথবা পোশাকের রঙের সঙ্গে ম্যাচ করে লিপস্টিক।

 

নবমীতে হয় সান্ধ্য পূজা। এই দিনে তাই সন্ধ্যার পরই মন্দিরে যায়। ভারী গহনা,উজ্জ্বল রংয়ের পোশাক,ভারী মেকআপ, তাজা ফুল এদিনের অনুষঙ্গ। সিল্কের, কাতান অথবা শিফনের শাড়ি নবমীর রাতে বেশ মানায়। মুখ ভালোভাবে পরিষ্কার করে ময়েশ্চারাইজার ও প্রাইমার লাগিয়ে ৪-৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর মুখে ফাউন্ডেশন ও কনসিলার দিয়ে ভালোভাবে বেন্ড করে নিয়ে লুস পাউডার দিয়ে মেকআপ সেট করে নিন। প্রয়োজন হলে একটু কন্টরিং করে নিন যাতে মুখের ফিচারগুলো ভালভাবে বোঝা যায়। মুখে ফাউন্ডেশন দেওয়ার সময় সামান্য ফাউন্ডেশন গলায় লাগিয়ে বেন্ড করে নিবেন।


তারপর পেনসিল দিয়ে আইব্রো এঁকে নিন। এবার ডার্ক ব্রাউন কালার আইব্রোশ্যাডো দিয়ে আইব্রো শেইপ করে নিন। চোখের ওপর গাঢ় আইশ্যাডো বেশ ভালো লাগবে সান্ধ্য-পূজায়। এর ওপর গ্লিটারি আইশ্যাডো লাগিয়ে নিন। তারপর সুন্দর করে আইলাইনার ও মাসকারা লাগিয়ে নিন। গালে গোলাপি ব্লাশন লাগান। গোলাপি ব্লাশ অন রাতে বেশি ভালোলাগে। গোল্ডেন হাইলাইটার দিয়ে চিকবোন আর নাক একটু হাইলাইট করুন।


মেরুন, লাল অথবা পোশাকের রঙের সাথে মানানসই লিপস্টিক পরুন। মন চাইলে পায়ে আলতা পরতে পারেন। গহনায় বেছে নিন রুপা বা গোল্ড প্লেটের স্টোন বসানো ভারী গহনা। একপাশে সিঁথি টেনে এলোখোঁপা মানিয়ে যাবে, তাতে পাথরের অনুষঙ্গ জমকালো ভাব যোগ করবে আরো। হাতে ও চুলে তাজা ফুলের মালা নবমীর সাজে দারুণ মানানসই।