ঈদের ফ্যাশন হওয়া চাই স্বস্তিদায়ক!

ঈদের ফ্যাশন হওয়া চাই স্বস্তিদায়ক!
ঈদের ফ্যাশন হওয়া চাই স্বস্তিদায়ক!
যেহেতু গরমেই ঈদ কাটবে তাই ঈদের ফ্যাশনে হালকা সাজ রাখুন। সুতির পাতলা কোন সেলোয়ার-কামিজের সাথে কপালে একটা ছোট টিপ, হালকা লিপস্টিক, হালকা কাজলে সেজে উঠুন। সাথে পরতে পারেন একজোড়া ঝুমকা।  

এবার ঈদের আনন্দ আসছে আতঙ্ক নিয়ে। করোনা দ্বিতীয় ধাপে দ্রুত গতিতে ছড়াচ্ছে। সারাদেশে চলছে কঠোর লকডাউনও। তাই অনেকেরই হয়তে ঈদের কেনাকাটা থেকে বিরত থাকতে হবে। শপিং মলে গিয়ে কেনাকাটা করা থেকে বিরত থাকাই যেন এবার বেশি উত্তম। 

 

তবে অনলাইন শপিং বলে একটা বিষয় এখন বেশ প্রচলিত।  দেশের  নামী-দামী সব ব্র্যান্ডই এখন অনলাইন শপ নামে অনলাইনে কেনাকাটার মাধ্যম চালু করেছে। তাই দেরি না করে ঈদের কেনাকাটা সেরে ফেলুন অনলাইনেই। নিরাপদে পণ্য আপনার হাতে পৌঁছে যাবে। তবে পোশাক কেনার সময় মাথায় রাখবেন এবারে ঈদ একেবারে গরমের সময়ে। তাই পোশাক নির্বাচনে হতে হবে সতর্ক। এমন কিছু পাতলা সুতির পোশাক নির্বাচন করুন যা আপনাকে গরমে দেবে আরাম এবং স্বস্তি। 

 

আর যাদের একেবারে অনলাইনে কেনাকাটাও সম্ভব নয়, তারা নাহয় গতবছরের কোন পোশাক বেছে নিন। একটা ঈদ নতুন পোশাকে না করলে তেমন কোন ক্ষতিই হবেনা। বরং স্বাস্থ্য ঝুঁকি থেকে নিরাপদ থাকবেন। তবে আপনার ঈদকেও অন্যরকম করে তুলতে বেছে নিতে পারেন মায়ের কোন একটা শাড়ী। সাথে খোঁপায় কোন তাজা ফুল দিয়ে চোখে হালকা কাজলে সাজিয়ে তুলুন ঈদ আয়োজন।  

 

যেহেতু গরমেই ঈদ কাটবে তাই ঈদের ফ্যাশনে হালকা সাজ রাখুন। সুতির পাতলা কোন সেলোয়ার-কামিজের সাথে কপালে একটা ছোট টিপ, হালকা লিপস্টিক, হালকা কাজলে সেজে উঠুন। সাথে পরতে পারেন একজোড়া ঝুমকা।  

 

যেহেতু করোনায় পরিস্থিতি আশঙ্কাজনক তাই ঈদ পালন করুন ঘরে। পরিবারের সাথেই সময় কাটান। বন্ধুদের নিয়ে বাইরে ঘুরতে নাহয় পরের বছরই গেলেন। ঘরে সকলে মিলে আড্ডা দিন, খাওয়াদাওয়া করুন। আয়োজন কোন ভালো সিনেমাও দেখতে পারেন বাসায়। 

 

ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন।