শেষ বিদায়ে জীবনসঙ্গীর পাশে একা রানী এলিজাবেথ

শেষ বিদায়ে জীবনসঙ্গীর পাশে একা রানী এলিজাবেথ
শেষ বিদায়ে জীবনসঙ্গীর পাশে একা রানী এলিজাবেথ
কফিন বহন করা হয়েছে একটি ল্যান্ড রোভার গাড়িতে, যার নকশা প্রিন্স ফিলিপ নিজেই করেছিলেন। ইংলিশ ওক কাঠের তৈরি কফিনটি ৩০ বছরের বেশি আগে তৈরি করা হয়েছিল। এটির সঙ্গে মিল রয়েছে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের জন্য তৈরি করা কফিনের।

গত সপ্তাহে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান ডিউক অব এডিনবারা প্রিন্স ফিলিপ।  শনিবার (১৭ এপ্রিল) সম্পন্ন হয় তার শেষকৃত্যের অনুষ্ঠান। আর সেখানে দীর্ঘক্ষণ একা বসে থাকতে দেখা যায় তার দীর্ঘ ৭৩ বছরের সঙ্গী , তার স্ত্রী ব্রিটিশ রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ ৷ দীর্ঘ জীবনের প্রিয় সঙ্গীকে এভাবেই একা বিদায় দেন তিনি।

 


শনিবার রাজকীয় বাসভবন উইন্ডসোর ক্যাসেলের পাশেই সেন্ট জর্জেস চ্যাপেলে সমাহিত করা হয় তাকে। গত ৯ এপ্রিল উইন্ডসর ক্যাসলে মারা যান প্রিন্স ফিলিপ। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৯ বছর। তার মৃত্যুতে পুরো যুক্তরাজ্য জুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। 

 


গতকাল তার শেষকৃত্যের অনুষ্ঠানে  কোভিড-১৯ বিধিনিষেধের কারণে এদিন মাত্র ৩০ জন মানুষ এ অনুষ্ঠানে সরাসরি অংশগ্রহণ করেছেন। তারা সবাই রাজপরিবারের সদস্য ও ঘনিষ্ঠজন। অংশগ্রহণকারীদের মাঝে দুই মিটার করে দূরত্ব বজায় ছিল। সবার মুখে ছিল মাস্ক। মরদেহ যখন নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল তখন রাজপরিবারের সবার পেছনে হাঁটছিলেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ।

 


তার কফিন বহন করা হয়েছে একটি ল্যান্ড রোভার গাড়িতে, যার নকশা প্রিন্স ফিলিপ নিজেই করেছিলেন। ইংলিশ ওক কাঠের তৈরি কফিনটি ৩০ বছরের বেশি আগে তৈরি করা হয়েছিল। এটির সঙ্গে মিল রয়েছে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের জন্য তৈরি করা কফিনের।

 


ঐতিহ্যগতভাবেই রাজপরিবারের সদস্যদের এই কাঠের তৈরি কফিনে সমাহিত করা হয়। কারণ এতে মরদেহ অনেক দিন সংরক্ষিত থাকে। প্রিন্সেস ডায়ানার মরদেহও এই ধরনের কফিনে সমাহিত করা হয়েছিল।