Skip to content

৪ঠা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | মঙ্গলবার | ১৯শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বাস্তব জীবনের মোগলি দক্ষিণ আফ্রিকার এলি

মোগলির নাম আমরা কম বেশি সবাই শুনেছি। অনেক গল্প ও চলচ্চিত্র মোগলির চরিত্র ও জীবনযাত্রা সম্পর্কে বর্ণনা করে। মোগলি কীভাবে বনে বাস করে এবং পশুদের সাথে ঘাস খায় এসব আমরা সেখান থেকেই জানতে পারি। তবে আজ আমরা বাস্তব জীবনের মোগলি সম্পর্কে বলতে যাচ্ছি।

২১ বছর বয়সী এলিকে বর্তমান সময়ের মোগলি বলা যায়। সম্প্রতি এলির ছবিগুলি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকার রুয়ান্ডায় বসবাস করে এলি। এলি মানুষের মাঝে থাকতে চায় না। সে বনে বেশি সময় কাটাতে পছন্দ করে।

মা-বাবার একমাত্র সন্তান এলি। বিরল রোগে ভুগছে সে। এলির আগে প্রথম পাঁচটি সন্তানকে হারান তার বাবা-মা। এলি তার ছয় নম্বর সন্তান। কিন্তু এলির কিছু দৈহিক সমস্যা আছে। তার মাথার আকৃতি বড়, দাঁতও বেশ অদ্ভুত। আসলে এলি ‘মাইক্রোসেফালি’ নামক একটি বিরল রোগে ভুগছেন। এ জাতীয় লোকের মাথা সাধারণ মানুষের চেয়ে কিছুটা বড় এবং তাদের মানসিক বিকাশও সঠিকভাবে হয় না। এলি ঘরের চেয়ে বরং গাছে থাকতে বেশি পছন্দ করে। সে কলা এবং ঘাস খেতে পছন্দ করে।

এলির মা বলেছেন, তার সন্তান অন্যদের চেয়ে সম্পূর্ণ আলাদা। সে ঘরে থাকতে চায় না, দৌড়ে বনে চলে যায় এবং সেখানকার প্রাণীদের সাথে থাকতে খুব ভালোবাসে। এলির মা আরও জানান, এলি ঠিক করে কথাও বলতে পারে না। গ্রামবাসীরা বলছেন, এলি উসাইন বোল্টের চেয়ে দ্রুত দৌড়ায়। সে পালিয়ে যায় বনের দিকে।