Skip to content

৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | শুক্রবার | ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শীতের উষ্ণতায় এক কাপ চা

শীত জেঁকে বসতে শুরু করেছে। শীতে উষ্ণতা পেতে চায়ের তুলনাই হয় না। শীতের সকালে ঘুম থেকে উঠে এক কাপ চা না হলে কি আর চলে? 

কাজের ফাঁকে কিংবা আড্ডায় সতেজতার জন্য এক কাপ চা যথেষ্ট। চা শুধুমাত্র অবসরের সঙ্গী বা আড্ডার প্রাণ নয় এর মধ্যে রয়েছে অনেক উপকারী গুণও। এতে আছে ফাইটোকেমিক্যালস যা মানব শরীরের হাড় শক্ত করে। গবেষণায় দেখা গেছে যারা চা পান করেন না তাদের তুলনায় চা পানকারী ব্যক্তিদের হাড় বেশি মজবুত। গ্রিন টিতে রয়েছে ফ্লুরাইড ও ট্যানিন যা দাঁতের জন্য ভালো।

আমাদের দেশে নানা ধরনের চা খাওয়া হয়। এরমধ্যে দৈনন্দিন জীবনে আমরা রঙ বা লাল চা এবং দুধ চা খেয়ে অভ্যস্ত। এছাড়াও নানা ধরনের চা খেয়ে থাকি আমরা। যেমন:, গ্রিন টি, ব্ল্যাক টি, হারবাল চা, মশলা ইত্যাদি নানা ধরনের চা। জেনে নেই কয়েক ধরনের চা এর ব্যাপারে। 

গ্রিন টি

মানদ দেহের জন্যে গ্রিন টি খুবই উপকারী। এক কাপ গ্রিন টি ২৫ মিলিগ্রাম ক্যাফেইন সরবারহ করে মানদ দেহে। ক্যান্সার প্রতিরোধক এবং হৃদরোগের ঝুঁকি কমায় গ্রিন টি। এছাড়াও মস্তিষ্ক গঠনে সহায়তা করে গ্রিন টি। মানব দেহের ওজন কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

হারবাল চা

প্রকৃতি থেকে আহরণ করে বিভিন্ন উপাদান দিয়ে তৈরি হয় হারবাল চা। আদা, পুদিনা পাতা, তুলসী পাতা, লেবু ইত্যাদি প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে তৈরি হয় এই চা। হারবাল চা শরীরের জন্য অনেক উপকারী। ঠান্ডার জন্য এই চা বেশ ভালো কাজ করে। শরীরের জীবাণু নষ্ট করে, পেটে প্রদাহ কমায়।

ব্ল্যাক টি

এই চা সাধারণত তেতো স্বাদের হয়ে থাকে। বিশ্বের প্রায় ৭৫ শতাংশ উৎপাদিত চা-ই ব্ল্যাক টি। এক কাপ ব্ল্যাক টিতে ৪০ মিলিগ্রাম ক্যাফেইন থাকে। এতে আরও রয়েছে এন্টিঅক্সিডেন্ট যা কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়। গবেষণায় দেখা গেছে যারা দৈনিক তিন কাপ চা পান করেন তাদের গড়ে ২১ ভাগ স্ট্রোকের ঝুঁকি হ্রাস পায়। 

অনেকে ফুটন্ত পানিতে চা পাতা দিয়ে অনেকক্ষণ পর্যন্ত সেদ্ধ করেন যার ফলে চায়ের ভেতর থেকে অতিরিক্ত ক্যাফেইন বের হয়ে আসে যা শরীরের জন্য ক্ষতিকর। তাই এক্ষেত্রে ছাকনিতে চা পাতা ঢেলে তার উপর গরম পানি ঢালুন এতে যে রং আসবে তা শরীরের জন্য উপকারী।