Skip to content

৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | রবিবার | ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সুস্বাদু ঝাল পোয়া পিঠা

মিষ্টি জাতীয় খাবার অনেকেই বেশি একটা খেতে পছন্দ করে না। এর পরবর্তীতে তাদের পছন্দের তালিকায় থাকে ঝাল জাতীয় মজাদার সব খাবার। কেননা এরা অনেকটা ঝাল খেতে পছন্দ করে থাকে।আবার সবাই কিন্তু সব সময় মিষ্টি খাবার ও খেতে চায় না। স্বাদের ভিন্নতা আনতে খেতে চায় ঝাল জাতীয় খাবার। এক্ষেত্রে যদি পিঠার কথা বলা হয় তাহলে তো সবার একটাই ধারণা এটি মিষ্টি হবে। বাহারী রকমের পিঠা পুলি তৈরি করা হয়।যা সবই প্রায় মিষ্টিই হয়ে থাকে। এছাড়াও এমন কিছু পিঠা আছে যে গুলো ঝাল তৈরি করা হয়ে থাকে।এতে খাবারের স্বাদ বাড়বে সেই সাথে যারা ঝালপ্রেমী বা মিষ্টি জাতীয় খাবার খেতে পারেন না তারাও খেতে পারবেন। তাই আজ আমরা জানবো কিভাবে এই সুস্বাদু ঝাল পোয়া পিঠা বানানো যায়।এটি খেতে অনেক মজার।বিকেলের নাস্তায় সহজেই এটি তৈরি করে নিতে পারবেন।

উপকরণ:

আতপ চালের গুঁড়া- ২ কাপ
ময়দা- ১ কাপ
ডিম- ২টি
খাবার সোডা- ১ চিমটি
লবণ- স্বাদমতো
চিনি- ১ চা চামচ
আদা বাটা- ১ চা চামচ
জিরা ও রসুন বাটা- ১ চা চামচ
হলুদ গুঁড়া- ১/২ চা চামচ
মরিচ গুঁড়া- ১/২ চা চামচ
পেঁয়াজ কুচি- ২ চা চামচ
কাঁচা মরিচ কুচি- ১ চা চামচ
ধনে পাতা কুচি- ১ মুঠি
পানি- পরিমাণমতো
তেল- ভাজার জন্য।

প্রক্রিয়া:

প্রথমে একটি পাত্র নিয়ে এতে একে একে সব উপকরণ গুলো এক সাথে দিয়ে দিতে হবে।অল্প অল্প পানি দিয়ে ঘন একটা বেটার তৈরি করতে হবে(তেলের পিঠার বেটার যেমন হয় ঠিক তেমন)।আগে লবন অল্প করে দিবেন,একে বারে দিতে গেলে বেশি হয়ে যেতে পারে।তাই অল্প দিন প্রয়োজনে পরে আবার দিবেন স্বাদ অনুযায়ী। এবার ভাজার জন্য কড়াইয়ে তেল নিয়ে গরম করে নি। জ্বাল মিডিয়াম রেখে একটা চামচ বা ছোট গ্লাসের সাহায্যে বেটার নিয়ে তেলে ছেড়ে দিন(ছোট ছোট সাইজে ছাড়লে পিঠা দেখতে অনেক সুন্দর হবে তাই বেশি বড় করে না দেওয়া ই ভালো)। এবার এপিঠ ওপিঠ করে বাদামী কালার করে ভেজে নিন। এইভাবে সব গুলো ভেজে বড় পাত্রে পরিবেশন করুন।

বাসার তৈরি সস বা যেকোনো চাটনি দিয়ে এই ঝাল পোয়া পিঠা খেতে পারবেন।

অনন্যা/এসএএস

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ