Skip to content

২৮শে জুন, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | মঙ্গলবার | ১৪ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দাঁড়িয়ে পানি পান করা কতটা নিরাপদ

মানুষ বেঁচে থাকতে সবচেয়ে বেশি যে জিনিস প্রয়োজন, তা হলো খাবার ও পানি। কারণ পানির আরেক নাম জীবন। কিন্তু তা হতে হবে বিশুদ্ধ পানি। যেকোনো খাবার খাওয়ার পরপরই পানি পান করে থাকি। রাস্তায় কিংবা ফুটপাতের দোকানে দাঁড়িয়ে আমরা বিভিন্ন ফাস্ট ফুড খেয়ে থাকি। খাওয়া শেষে সেখানেই দাঁড়িয়ে পানি পান করি। এটা কি ঠিক?

না। দাঁড়িয়ে পানি খাওয়া ধর্মীয় দিক থেকে ঠিক নয়, আবার স্বাস্থ্যগত দিক থেকেও না। পানি দাঁড়িয়ে পান করলে কী সমস্যা হতে পারে, চলুন জেনে নেই।

আয়ুর্বেদশাস্ত্র মতে, যখন কেউ দাঁড়িয়ে পানি পান করে, তখন তার পাকস্থলীর দেয়ালে বেশ চাপ পড়ে। কারণ পানি অন্ননালী বেয়ে সরাসরি পাকস্থলীতে গিয়ে পৌঁছায়। ফলে পানি প্রবাহের গতি যত বেশি থাকে, পাকস্থলীর দেয়ালও ততই ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এছাড়া দাঁড়িয়ে পানি পান করলে পানি থেকে দেহ কোনো ধরনের খনিজ উপাদান ও পুষ্টি গ্রহণ করতে পারে না।

দাঁড়িয়ে পানি পান করলে দেহের ওপরও বিরূপ প্রভাব ফেলে। কারণ পানি খুব বেগে নিচের দিকে নামতে থাকে। ফলে মুত্রথলিতে পানি কোনো পরিশোধন ছাড়াই জমা হতে থাকে। যা কিডনিকে ধীরে ধীরে ক্ষতিগ্রস্ত করে।

পানি সোজা দাঁড়িয়ে পান করায় গলা থেকে প্রবল বেগে কোনো বাধা ছাড়াই নিচের দিকে নামতে থাকে। এ কারণে দেহের বায়োলজিক্যাল সিস্টেমের যেকোনো স্থানেই আঘাত লাগতে পারে। এতে ওই স্থানে বা হাড় ও পেশীর সংযোগস্থলে সহজেই ব্যথার সৃষ্টি করে।

দাঁড়িয়ে পানি পান করলে খাদ্য ও বায়ু প্রবাহের নালীগুলোতে অক্সিজেন সরবরাহে ব্যাঘাত ঘটতে পারে। ফলে ফুসফুস ও হৃদযন্ত্রেও সমস্যা দেখা দিতে পারে।

এসব সমস্যা এড়াতে আমাদের দাঁড়িয়ে পানি পান করা এড়িয়ে চলতে হবে। সবসময় বসে পানি পানের অভ্যাস করতে হবে এতে শরীর সুস্থ থাকবে।

অনন্যা/এসএএস