Skip to content

১৭ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ | বুধবার | ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নারী ডেপুটি গভর্নর: নারীকে পথ চলতে দাও

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক নুরুন নাহার ডেপুটি গভর্নর (ডিজি) হতে যাচ্ছেন। আগামী তিন বছরের জন্য চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পেতে যাচ্ছেন তিনি। বিষয়টি নারী সমাজ তো বটেই, পুরো জাতির জন্যও আনন্দের। তার আগে কিছু কথা বলে নিতে চাই।

আমাদের সমাজে নারী- পুরুষকে সর্বদা ভিন্ন দৃষ্টিতে দেখা হয়। এবং নারীদের সঙ্গে পরিবার-সমাজের আচরণও ততটাই নেতিবাচক। পরিবারের সামর্থ্য অনুযায়ী ছেলে সন্তানকে প্রতিষ্ঠিত করতে, ভালো স্কুল- কলেজ এবং উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত করার ক্ষেত্রে বাবা- মা তথা অভিভাবকদ্বয়ের চিন্তার শেষ থাকে না। কিন্তু মেয়ে সন্তান হলে বরং প্রথমত আর্থিক দুরাবস্থার কথা বলে গছিয়ে দেওয়া হয় পাত্রপক্ষের কাছে। তারপর সব দায় ওই পরিবারের ঘাড়ে গিয়ে পড়ে। এবং নারী হয়ে পড়ে কলুরবলদ।

স্বামী-সংসারের দাসত্ব করতে গিয়ে নিজের জীবনের সব শখ- আহ্লাদ বিসর্জন দেন। এটাই প্রায় শতভাগ নারীর জীবনের গল্প। তাদের পথচলা পরিবার-পরিজন কেন্দ্রিক। নিজের বলতে দিনশেষে কিছুই থাকে না। এমনকি যে বা যাদের কথা ভেবে তিনি জীবনের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সময় ক্ষেপণ করেন তারাই তাকে প্রশ্নবাণে বিদ্ধ করেন! পরিবার- সন্তানের জন্য কী করেছে তিনি! কারণ এ সমাজে নারীর মূল্যমান নির্ধারিত হয় ক্যাশ টাকায়। তাই পরিবারে যে নারীরা দিনরাত মাথার ঘাম পায়ে ফেলে শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন তারা শ্রদ্ধার চেয়ে বেশি পায় অবজ্ঞা – অবহেলা!

তবে আশার কথা হলো এই নারীরাই যখন সব বাধা-বিপত্তি, প্রতিকূল পরিবেশ ভেঙে নিজের অবস্থান দৃশ্যমান করেন। এই নারীদের তখন করজোড়ে কুর্ণিশ করা ছাড়া গত্যন্তর নেই। সবাই যে পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতির সঙ্গে লড়াই করে জয়ী হতে পারেন এমনটা নয়। তবে যারা কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকেন, কখনও নিজের মনোবল হারান না তারা একদিন না একদিন কাঙ্ক্ষিত সাফল্য অর্জন করেনই। নারীদের পথচলাকে মসৃণ করতে বারবারই কিছু নারী উদাহরণ তৈরি করেছেন। শত প্রতিকূলতার পাহাড় ডিঙিয়ে নিজের যোগ্যতাকে প্রমাণ করেছেন। এমনই একজন নারী নুরুন নাহার। যার আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে এগিয়ে চলা আরও অসংখ্য বাঙালি নারীর পথের পাথেয়।

ফিরে আসি নারী ডেপুটি গভর্নর নিয়োগ প্রসঙ্গে। খবরে প্রকাশ, অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ এরই মধ্যে নুরুন নাহারকে ডিজি পদে নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু করেছে। শিগগিরই তার নিয়োগের প্রজ্ঞাপন হবে বলে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্র নিশ্চিত করেছে। নুরুন নাহার দ্বিতীয় কোনো নারী, যিনি বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর হচ্ছেন। এর আগে প্রথম নারী ডেপুটি গভর্নর ছিলেন নাজনীন সুলতানা। নুরুন নাহারের মতো নারীরা এ সমাজের পথ নির্দেশক। যারা শত বাধা- বিপত্তি পেরিয়ে নিজেদের চলার পথ তৈরি করেছেন। মর্যাদাসম্পন্ন জায়গায় নিজেকে অধিষ্ঠিত করার লড়াই চালিয়েছেন প্রতিনিয়ত। প্রত্যেকে নারীর সামনে নুরুন নাহারের মতো নারীরা একটি উদাহরণ। কারণ পরিবার- সমাজ- সংসারকে পাড়ি দিয়েই তাঁকে এই অধিষ্ঠানে অধিষ্ঠিত হতে হয়েছে।

তাই চলার পথে নারীরা যখন থমকে যান, নিজের পাশে কাউকে না পেয়ে হতাশায় জর্জরিত হন তখন এই নারীদের গল্পগুলোকে সঙ্গী করা উচিত। জীবন কারোরই ফুলশয্যা নয়। তবে সেই ফুলশয্যা রচনার জন্য প্রতিনিয়ত লড়াইয়ের নামই জীবন। তাই নারীর পথচলার অনুপ্রেরণা হয়ে উঠুক নুরুন নাহারের মতো নারীরা। আর সব বাধা পেরিয়ে নারীরা নিজের জগৎকে সমৃদ্ধ করতে সচেষ্ট হোক। নারীকে পথ চলতে দাও,তাহলে সমাজও মসৃণপথে চলবে।

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ