Skip to content

২০শে ফেব্রুয়ারী, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ | মঙ্গলবার | ৭ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

অনূর্ধ্ব-২০ সাফ: অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের মেয়েরা

সাফ অনূর্ধ্ব-২০ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম আসরেই চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ দল। বৃহস্পতিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে নেপালকে ৩-০ গোলের ব্যবধানে উড়িয়ে শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশ।

ম্যাচের ৪১ মিনিট ডি বক্সের বাইরে থেকে শট নিয়ে দুর্দান্ত এক গোল করে বাংলাদেশকে এগিয়ে দেন রিপা। এর মিনিট চারেক পর প্রথমার্ধের নির্ধারিত সময় শেষে যোগ করা অতিরিক্ত সময়ের প্রথম মিনিটেই নাহার জুনিয়রের গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ করে বাংলাদেশ। ৪৫তম মিনিটে ডি বক্সের বাইরে বল হারায় নেপালের ডিফেন্ডার। আর সেখান থেকে বল নিয়ে ডি বক্সে ঢুকে গোলরক্ষককের পাশ দিয়ে হালকা খোঁচা দিয়ে শট করে বল জালে জড়ান নাহার। বাংলাদেশ এগিয়ে যায় ২-০ গোলের ব্যবধানে। আর ম্যাচের নির্ধারিত সময়ের তিন মিনিট বাকি থাকতে শাহেদা আক্তার রিপার নেওয়া দুর্দান্ত এক সেটপিস থেকে উড়ে আসা বল দূরের পোস্টে ঢুকে বল জালে জড়িয়ে বাংলাদেশকে ৩-০ গোলে এগিয়ে নেন উন্নতি খাতুন। আর তাতেই নিশ্চিত হয় বাংলাদেশের শিরোপা।

চোট থাকায় ভুটানের বিপক্ষে ম্যাচে বিশ্রাম পেয়েছিলেন সোহাগী কিসকু ও মাহফুজা খাতুন। তিনদিনের বিশ্রাম শেষে ফাইনালের একাদশে ফেরেন দুজনেই। একাদশের বাইরে আইরিন খাতুন ও উন্নতি খাতুন।

খেলা শুরুর দ্বিতীয় মিনিটেই এসেছিলো গোলের সুযোগ। নেপালি গোলরক্ষক কবিতা বল বিপদমুক্ত করতে না পারায় উন্মুক্ত পোস্টে শট নিয়েছিলেন আকলিমা খাতুন। তবে নেপালের ভাগ্য ভালো, শট লক্ষ্যে থাকেনি। ১৮তম মিনিটে শামসুন্নাহারের বাড়ানো বলে বক্সে আড়াআড়ি পাস বাড়ান রিপা, সেখানে আকলিমার শট ঝাঁপিয়ে আটকান গোলরক্ষক কবিতা। দ্বিতীয় প্রচেষ্টায় বল গ্লাভসে নেন তিনি।

এরপর একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে বাংলাদেশ। তবে ম্যাচের ৩৬তম মিনিটে প্রথমবার গোছালো আক্রমণে ওঠে নেপাল। বাম প্রান্ত থেকে মমতা পুনের ক্রসে শরীর ঘুরিয়ে আমিশা কার্কির শট চলে যায় পোস্টের পাশ ঘেষে।

অবশেষে নেপালের রক্ষণদূর্গ ভাঙতে পারে বাংলাদেশ ম্যাচের ৪১তম মিনিটে এসে। বল নিয়ে বক্সে ঢুকে পড়া আকলিমাকে আটকালেও নেপালের ডিফেন্ডার কুমারি তামাংয়ের দুর্বল ক্লিয়ার বক্সের বাইরে পেয়ে ফাঁকা পোস্টে বল জড়ান রিপা। এগিয়ে যাওয়ার আনন্দে মাতে স্বাগতিকরা। মিনিট চারেক পর গোল করেন অধিনায়ক শামসুন্নাহার জুনিয়র। নিজেদের অর্ধ থেকে রিপার বাড়ানো বলে দারুণ দক্ষতায় দুই নেপালি ডিফেন্ডারকে ফাঁকি দিয়ে আগুয়ান গোলরক্ষকে বোকা বানিয়ে বল জালে পাঠান শামসুন্নাহার।

বিরতির পর বল নিয়ন্ত্রণে রেখে খেলতে শুরু করে বাংলাদেশ। ৫৬তম মিনিটে সতীর্থের লম্বা পাস ধরে অফসাইডের ফাঁদ ভেঙে বেরিয়ে গোলরক্ষকের চার্জে পড়ে যাওয়ার আগে শট নেন শামসুন্নাহার। কিন্তু বল যায় ক্রসবারের উপর দিয়ে। এরপর রিপা ও শামসুন্নাহারের দূরপাল্লার শট যায় বাইরে। ৭৯তম মিনিটে গোলরক্ষককে একা পেয়েও শট নিতে দেরি করে ফেলেন শামসুন্নাহার। আর তাতেই ব্যবধান বাড়ানোর আরও একটি সুযোগ নষ্ট হয় বাংলাদেশের। পরের মিনিটে নেপালের আমিশার নিচু শট ঝাঁপিয়ে এক হাত বাড়িয়ে আটকে বাংলাদেশকে জয়ের পথে রাখেন গোলকিপার রুপনা চাকমা।

খেলার নির্ধারিত সময়ের তখন বাকি আর মাত্র তিন মিনিট। দুই গোলে এগিয়ে থাকা বাংলাদেশের শিরোপা জয় তখন অনেকটাই নিশ্চিত। তবুও শতভাগ নিশ্চিতের জন্য আরও একটি গোলের জন্য মরিয়া হয়ে খেলতে থাকে বাংলাদেশ। ৮৭তম মিনিটে ডি বক্সের একটু উপর থেকে রিপার নেওয়া ফ্রি কিকে দূরের পোস্টে থাকা উন্নতি পা ছোঁয়ালে বল জালে জড়ায়। ম্যাচের ভাগ্যও লেখা হয়ে যায় এই গোলে। চলতি টুর্নামেন্টে এই প্রথম গোল পেলেন উন্নতি। আর বাংলাদেশ ৩-০ গোলের জয়ে সাফ অনূর্ধ্ব-২০ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম আসরের শিরোপা জিতল বাংলাদেশ। এ নিয়ে বয়সভিত্তিক সাফে বাংলাদেশ চতুর্থ শিরোপা জিতলো।

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ