Skip to content

১লা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | বৃহস্পতিবার | ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিশ্বমঞ্চে দর্শকদের সঙ্গে উল্লাসে মেতে উঠতে চান মাশা

২০১৭ সালে ইউটিউব থেকে শুরু করে ধীরে ধীরে প্রখ্যাত সঙ্গীত পরিচালক এবং চলচ্চিত্র নির্মাতাদের সাথে চলচ্চিত্রে কাজ করতে পারার অভিজ্ঞতা উল্লেখযোগ্য। আমার কাছে আমার প্রতিটি কাজই বিশেষ কিছু। তবে যখন ‘টেকা পাখি’ গানের জন্য এত ভালোবাসা পাই তখনকার অনুভূতি বলে বোঝানোর মত না।’ এভাবেই নিজের কাজের জনপ্রিয়তা নিয়ে পাক্ষিক অনন্যার কাছে অনুভূতি প্রকাশ করছিলেন সংগীতশিল্পী মাশা ইসলাম

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আজকাল একটি গান বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। ছোট থেকে বড় সবাই এক কথায় সেই গানের ভক্ত। ‘টেকা ও পাখি’ শিরোনামের গানটি বেশ কয়েকদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ঘুরে বেড়াচ্ছে। তরুণ শিল্পী মাশা গানটি গেয়েছেন।

মাশার জন্ম খুলনায়, তবে বেড়ে ওঠা ঢাকায়। ছোটবেলা থেকেই সঙ্গীতের প্রতি ঝোঁক ছিল তার। মাশার ভাষায়, সঙ্গীত তখন থেকেই আমার জীবনের একটি অংশ এবং এটি এমন কিছু যা আমি সবসময় উপভোগ করি। শুরুটা হয়েছিল আবেগের জায়গা থেকে। তবে সংগীত নিয়ে ক্যারিয়ার গড়ার পরিকল্পনা কখনই ছিল না। গায়িকা হওয়া সবসময় স্বপ্ন ছিল, কিন্তু কখনোই তা সম্ভব হবে ভাবিনি।

মাশা বলেন, ‘আমি আমার কাজের প্রতিদানে কখনো কিছু আশা করিনি। কারণ আমার ফোকাস সবসময় নৈপুণ্যের দিকে থাকে। আমার লক্ষ্য সবসময় আমার কাজের বিষয়ে সৎ এবং কঠোর পরিশ্রমী হওয়া।

২০১৭ সালে যখন আমি ইউটিউব থেকে যাত্রা শুরু করি তখন থেকেই আমার শ্রোতারা সবসময় আমাকে যে ভালোবাসা ও উৎসাহ দিয়েছেন যা আমার কল্পনার বাইরে।’ ফলে সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করলেন মাশা।

ভক্তরা এরপর আপনার থেকে কি কি কাজ উপহার পেতে যাচ্ছে—এমন প্রশ্নের জবাবে মাশা বলেন, ‘আমি এই মুহূর্তে আমার নিজস্ব কিছু কাজ করছি। কিছু গান লিখেছি এবং সুর করেছি, সেগুলো নিয়েই হাজির হবো।’

১০ বছর পর মাশা নিজেকে ‘বিশ্ব দরবারের একটি বড় মঞ্চে হাজার হাজার মানুষের সামনে’ নিয়ে যেতে চান। তার ভাষায়, ‘বিশ্বমঞ্চে দর্শকদের সঙ্গে উচ্চস্বরে উল্লাস করব, এটা আমার স্বপ্ন। ‘

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ