Skip to content

২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | শনিবার | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

করোনা-পরবর্তী জটিলতা থেকে মুক্তি পেতে ৩ যোগব্যায়াম

কোভিড-১৯ থেকে সেরে ওঠার পর নানা শারীরিক জটিলতায় ভোগে রোগীরা। সাধারণত, দুর্বলতা ও অল্পতেই হাঁপিয়ে ওঠার মতো সমস্যাগুলো হয়। এ- ছাড়া, শরীর ম্যাজ-ম্যাজ করা, অস্থিসন্ধি ও মাংসপেশিতে ব্যথা, অবসাদ ও ক্লান্তি ভাবও হয়। এ-সব সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে যোগব্যায়ামে ভরসা রাখতে পারেন। জেনে নিন, কোন কোন যোগব্যায়াম করবেন: 

 
ভ্রামরী প্রাণায়ামে

এই প্রাণায়ামটি করার সময়ে ভ্রমরের মতো গুঞ্জন হয়, তাই এমন নামকরণ। দুই হাতের তর্জনী দুই কানের ওপর রাখুন। এরপর নাক দিয়ে ধীরে-ধীরে একটি গভীর শ্বাস ভেতরে টেনে নিন। এবার মুখ দিয়ে ধীরে-ধীরে নিঃশ্বাস ছাড়ার সময়ে গলা দিয়ে নিচু স্বরে একটি ’হুম’ শব্দ করুন। এই প্রাণায়াম প্রতিদিন করতে পারলে মানসিক চাপ কমার পাশাপাশি দূর হবে ক্লান্তি। স্নায়ুকেও শান্ত রাখে ভ্রামরী প্রাণায়াম।

 

ভস্ত্রিকা প্রাণায়াম

প্রথমে জোরে শ্বাস নিন। এরপর শ্বাস পুরো ছেড়ে দিন। এ-ক্ষেত্রে যতটা শ্বাস নেবেন, ততটাই ছাড়তে হবে। সুবিধার জন্য এক থেকে চার গুনতে-গুনতে শ্বাস নিন এবং এক থেকে চার গুনতে-গুনতে শ্বাস ছাড়ুন। তিন থেকে ছয় মিনিট এই প্রাণায়ামটি করতে পারলে ভালো। শ্বাসকষ্ট, হাঁপানি, সাইনাসের সমস্যা থাকলে এই প্রণায়াম দারুণ উপকারী। এতে ফুসফুস শক্তিশালী হয়, পাশাপাশি প্রচুর অক্সিজেন পাওয়ার কারণে হৃদযন্ত্র ও মস্তিষ্ক সুস্থ থাকে।

 

অনুলোম-বিলোম প্রাণায়াম

অন্যতম কার্যকর প্রাণায়াম হলো, অনুলোম-বিলোম। এই প্রাণায়ামটি হৃদযন্ত্র ও ফুসফুস ভালো রাখে। এ-ক্ষেত্রে একটি আঙুল দিয়ে নাকের এক দিক বন্ধ রেখে অন্য দিকটা দিয়ে শ্বাস নিন। এরপর একই ভাবে পালা করে  নাকের খোলা দিকটা বন্ধ রেখে অন্য দিকটা খুলে শ্বাস ছাড়ুন। প্রতিদিন ঠিক ঘুমানোর আগে কমপক্ষে ৫ মিনিট এটা করুন। ঘুমের সমস্যা বেশি হলে ১০-১৫ মিনিট করতে পারেন। এটি একটানা ২১-২৮ দিন করবেন। অনিয়মিত করলে কাঙ্খিত উপকার পাবেন না।