Skip to content

১লা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | বৃহস্পতিবার | ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সিআইপি হলেন রাশিয়া প্রবাসী ইন্জিনিয়ার আলমগীর জলিল

রাশিয়া প্রবাসী ইন্জিনিয়ার আলমগীর জলিল সিআইপি (বাণিজ্যিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি) হয়েছেন। বাংলাদেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রবাসী বাংলাদেশিদের ‘সিআইপি’ হিসেবে নির্বাচিত করে সরকার।
 
প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে ৩টি আলাদা ক্যাটাগরিতে নির্বাচিত এনআরবি-সিআইপি তালিকা প্রকাশ করা হয়। এতে বৈধ চ্যানেলে বাংলাদেশে সর্বাধিক বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণকারী ক্যাটাগরিতে রাশিয়া প্রবাসী ইন্জিনিয়ার আলমগীর জলিল রয়েছেন।
 
ইন্জিনিয়ার আলমগীর জলিল এ প্রসঙ্গে বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের যোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ, রাশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত কামরুল আহসানসহ দূতালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ধন্যবাদ জানাই। সবাই দোয়া করবেন যাতে সবসময় দেশের মানুষের কল্যাণে কাজ করতে পারি।
 
অ্যাসোসিয়েশন অব গ্রাজুয়েটস অ্যান্ড ফ্রেন্ডস পিপলসের ‘কাউন্সিল চেয়ারম্যান’ এবং সাব অ্যান্ড ফ্রেন্ডস অব রাশিয়ার সভাপতি আলমগীর জলিল। করোনাকালে সব ধরনের সহায়তা নিয়ে রাশিয়া প্রবাসী বাংলাদেশিদের পাশে ছিলেন তিনি। রাশিয়ার বাংলাদেশি কমিউনিটিতে তিনি ‘সবার বন্ধু আলমগীর’ নামে পরিচিত।

প্রতিবছর বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান, ডিপ্লোম পাওয়াদের জমকালো আয়োজনে সম্মাননা দিয়ে থাকেন তিনি। বাংলাদেশ-রাশিয়া সম্পর্ক শক্তিশালী করতে সাংস্কৃতিক বন্ধন বাড়াতে রুশ-বাংলা কনসার্ট করেন আলমগীর জলিল। এই কনসার্টে অংশগ্রহণ করে দুই দেশের নামী শিল্পীরা।

আজ শনিবার (১৮ ডিসেম্বর ঢাকায়) আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবসের অনুষ্ঠানে নির্বাচিত প্রবাসী সিআইপিদের সনদ প্রদান করা হয়।

এনআরবি-সিআইপিদের সুবিধাগুলোর মধ্যে রয়েছে- সরকারের দেওয়া পরিচয়পত্র দিয়ে সচিবালয়ে প্রবেশ, সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সরকারি বিভিন্ন নীতিনির্ধারণী কমিটিতে সদস্য হওয়ার  যোগ্যতা, দেশে-বিদেশে উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে অগ্রাধিকার, জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ দিবসগুলোতে বিদেশে বাংলাদেশ মিশনের অনুষ্ঠানে অতিথি এবং বাংলাদেশে উপস্থিত থাকলে বিভিন্ন জাতীয় অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ পাবেন।

এ ছাড়াও, এনআরবি সিআইপিরা উড়োজাহাজ, রেল, সড়ক ও জলযানে আসন সংরক্ষণে অগ্রাধিকার পাবেন, বিমানবন্দরে ভিআইপি লাউঞ্জ ও স্পেশাল হ্যান্ডলিংয়ের সুবিধা পাবেন এবং স্ত্রী, সন্তানসহ চিকিৎসার জন্য সরকারি হাসপাতালে কেবিন সুবিধা পাওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন। প্রবাসী সিআইপিরা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করলে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের মতোই সুযোগ-সুবিধাও পাবেন।

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ