Skip to content

৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | শুক্রবার | ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শেখ হাসিনাকে ফ্রান্সে তিন জায়গায় গার্ড অব অনার দেওয়া হবে 

নারী ক্ষমতায়নে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ তার উল্লেখযোগ্য উদাহরণ হলো বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। যিনি বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশে রূপান্তরিত করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ৯ থেকে ১২ নভেম্বর ফ্রান্স সফর করবেন। প্যারিসে ইউনেস্কো সদর দফতরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে একটি আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের হাতে সম্মাননা তুলে দেওয়াই ছিল তাঁর প্রথমে উদ্দেশ্য ছিল। তবে শেখ হাসিনা সশরীরে প্যারিস আসছেন ফ্রান্স কর্তৃপক্ষ যখন জানতে পারলো তখন তারা এটিকে সরকারি সফর ঘোষণা করলো।

শুধু তাই নয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এই সফরে তিন জায়গায় গার্ড অব অনার প্রদান করা হবে এবং ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী উভয়ের সঙ্গেই শেখ হাসিনার দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হবে।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোঃ. শাহরিয়ার আলম সফর উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘সফরটি অনেক ব্যাপক। তিনটি জায়গায় প্রধানমন্ত্রীকে গার্ড অফ অনার প্রদান করা হবে।’ 

সফরে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে উপযুক্ত দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হবে। এছাড়া ফ্রান্সের অনেকগুলো কোম্পানি যারা বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী, তাদের সঙ্গে বৈঠক হবে এবং আমরাও রফতানি বাড়াতে আগ্রহী বলে জানান তিনি। 

তিনি বলেন, এয়ারবাসের সঙ্গে বৈঠক আছে, এভিয়েশন খাতের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠক আছে। ফ্রান্সের ব্যবসায়িক অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে বৈঠক আছে।

তিনি আরও বলেন, ইউনেস্কোর ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান এই সফরের গুরুত্ব আরও বাড়িয়ে দিয়েছে এবং সফরের একটি তাৎপর্য হয়তো থাকতে পারে। ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের একটি প্রভাবশালী দেশ হচ্ছে ফ্রান্স। ইইউতে পরিবর্তন হওয়ার পরে ফ্রান্সে প্রধানমন্ত্রীর এটি প্রথম সফর।

কতটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হতে পারে জানতে চাইলে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা এ মুহূর্তে বলতে চাইছি না। সফরের শেষ সময় পর্যন্ত নেগোসিয়েশন হয়, একটু অপেক্ষা করেন। 

উল্লেখ্য, শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে তাঁর নামে আন্তর্জাতিক পুরস্কারটি বিজয়ী ব্যক্তি বা সংস্থাকে প্রদান করা হবে এবং প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিতব্য এ পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে আশা করা যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী সশরীরে যোগ দিয়ে বিজয়ীদের হাতে সম্মাননা তুলে দিতে পারেন। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী প্রাক্তন ফরাসি বাণিজ্যমন্ত্রী ও বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার সাবেক মহাপরিচালক প্যাসকেল ল্যামির আমন্ত্রণে প্যারিস পিস ফোরামের উচ্চ পর্যায়ের অধিবেশনে যোগ দিতে পারেন।