Skip to content

২১শে ফেব্রুয়ারী, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ | বুধবার | ৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

এতো দিনে যে দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত

২০১৯ সালের শেষের দিকে চীনের উহানে প্রথম করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। এরপর প্রাণঘাতী এই ভাইরাস বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী বিশ্বের ২২১ টি দেশ ও অঞ্চলের মানুষে এই ভাইরাসের বিস্তৃতি ঘটে। তবে টোঙ্গা তার থেকে ব্যতিক্রম ছিল। 

 

ব্যতিক্রম থাকা এই দেশটিরও শেষ রক্ষা হলো না। এতোদিনে যে দেশে করোনা সংক্রমণ হয় নি সেখানে শুক্রবার প্রথম করোনা সংক্রমণ হওয়ার ঘোষণা দেয় টোঙ্গা সরকার। খবর টি আল জাজিরা থেকে প্রকাশিত। টোঙ্গা অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড ঘেঁষে প্রশান্ত মহাসাগরের ছোট্ট দ্বীপরাষ্ট্র। এক লাখের কিছু বেশি মানুষের বসবাসে ছোট ছোট দ্বীপ নিয়ে দেশটি গঠিত। তার মধ্যে নুকুয়ালোফা ও এর আশেপাশের দ্বীপ গুলোয় ৭০ শতাংশের বসবাস। প্রশান্ত মহাসাগর থেকে মাছ ধরা ও পর্যটনের ওপরই দেশটির জীবন জীবিকা নির্ভরশীল।

 

বিশ্বে করোনা মহামারীর দেড় বছর পেরিয়ে গেলেও ছোট্ট এই দেশটিতে করোনা সংক্রমণ আঘাত হানতে পারে নি। দেশটির গণমাধ্যম গতকাল জানিয়েছে, টোঙ্গায় আসা নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ শহরের এক উড়োজাহাজ-যাত্রীর শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। তিনিই টোঙ্গায় প্রথম শনাক্ত হওয়া করোনা রোগী। 

 

টোঙ্গার প্রধানমন্ত্রী পোহিভা তুউই ওনেতোয়া গতকাল রাষ্ট্রীয় রেডিওতে দেওয়া ভাষণে দেশটিতে প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের কথা জানিয়েছেন। এ সময় তিনি বলেন, ‘ক্রাইস্টচার্চ থেকে ২১৫ জন টোঙ্গায় এসেছেন। তাঁদের মধ্যে একজনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে।’ প্রধানমন্ত্রী পোহিভা তুউই ওনেতোয়া রোগী শনাক্তের পরিপ্রেক্ষিতে টোঙ্গা-বাসীকে বলেছেন শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ কোভিড–১৯–সংক্রান্ত যাবতীয় নিয়ম মেনে চলতে। তিনি জানান, দেশজুড়ে লকডাউন দেওয়া হবে কি না, সে বিষয়ে আগামী সোমবার নাগাদ সরকারের পক্ষ থেকে ঘোষণা আসবে।

 

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ক্রাইস্টচার্চ থেকে আসা ওই উড়োজাহাজে শ্রমিক এবং টোঙ্গার অলিম্পিক দলের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তারা ছিলেন। ওই সময় বিমানবন্দরে দায়িত্ব পালনকারী কর্মকর্তা–কর্মচারী, স্বাস্থ্যকর্মী ও পুলিশ সদস্যদের কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে, তবে দেশটির কর্তৃপক্ষ করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তির পরিচয় প্রকাশ করেনি ।

 

অপরদিকে সীমিত স্বাস্থ্যব্যবস্থা থাকার পরও টোঙ্গার ৩১ শতাংশ মানুষ করোনার টিকার পূর্ণাঙ্গ ডোজ নিয়েছেন। একই সঙ্গে টোঙ্গাবাসী করোনার টিকার এক ডোজের আওতায় এসেছেন ৪৮ শতাংশ, জানিয়েছে করোনা মহামারিবিষয়ক গবেষণা-প্রতিষ্ঠান আওয়ার ওয়ার্ল্ড ইন ডেটা। 

 

 

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ