Skip to content

২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | বৃহস্পতিবার | ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

অবসাদের স্বস্তিতে রং

অবসাদ চারটি অক্ষরের একটি শব্দ হলেও এর গভীরতা অনেক। যে গভীরতা সামাল দিতে গিয়ে রীতিমতো হিমসিম খেতে হয়। সারাদিনের ব্যস্ততা শেষে একটুখানি স্বস্তির পরশ বুলিয়ে দেয় নিজের চিরপরিচিত রুমখানির পরিচিত চিত্র। তাই মানসিক সুস্থতার জন্য ঘরের রঙের নির্বাচন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। স্বাস্থ্য ও মনের উপর রঙের প্রভাব বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত। সুন্দর রঙের পরিবেশে মন থাকে আনন্দে পরিপূর্ণ। 

একটা সময় ছিলো ঘরের চাকচিক্যের দিকে ঝুঁকতো সবাই। এখন ঘরের রং নির্বাচনের দিয়ে নিজের ব্যক্তিত্ব ও মানসিকতাটাও ফুটিয়ে তুলতে চান অনেকে। বর্তমানে ঘরের স্থান ও ডিজাইন ভেদে ভিন্ন ভিন্ন রঙের ব্যবহার হয়।

ষড়ঋতুর দেশে আবহাওয়ার নানারকম বৈচিত্র্য থাকলেও গ্রীষ্ম প্রধান দেশ বলে স্বীকৃতি পাওয়ার কারণে কম বেশি বছরের বেশিরভাগ সময় গরম অনুভূত হয়। এ ক্ষেত্রে ঘরের দেয়ালে সাদা বা অফহোয়াইট রঙেরই প্রাধান্য এখনো বেশি।

কথায় আছে বেদনার রঙ নীল। তবে শুধুই যে বেদনার রঙ নীল তা নিয় আভিজাত্যর প্রতীকও নীল। সমুদ্র, আকাশ পছন্দ নয় এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দায়। রুম যদি হয় প্রসস্থ তবে রুমে নীল রঙের আধিক্য মনে এনে দিতে পারে কাল্পনিক সমুদ্রের বাতাসের দোলা, এনে দিয়ে পারে পাড়ে ঘেঁষা ঝাউবনের কাল্পনিক হাতছানি। নীল রঙ আমাদের মনকে শান্ত ও স্থিতিশীল করে তোলে। তবে কিছুটা বিষাদেরও আভাস দেয় এই নীল রঙ। তাই শোবার রুমে নীলের মিশেলে রঙ নির্বাচন করা ভালো।

বাড়ির যে রুমটিতে আলোর আধিক্য কম, হালকা রঙের ব্যবহার রুমটিকে করে তুলতে পারে ব্যক্তিগত কিছুটা সময় কাটানোর জায়গা। গাঢ় রঙে ঘর ছোট মনে হয়। সেক্ষেত্রে অপেক্ষাকৃত কম প্রশস্ত ও কম আলোর ঘরে গাঢ় বেগুনি, টিয়া, লাল, কালো রঙ ব্যবহার না করাই ভালো। হালকা, সতেজ, শান্তি ও স্নিগ্ধ আমেজ আনে এমন রঙ ব্যবহার করা উচিত। 

ভালোবাসার রঙ লাল। বিভিন্ন জিনিষ আকর্ষণীয় করার জন্য লাল রঙ ব্যবহার করা হয়। ঘরে লাল রঙের ব্যবহার মনে উদ্দীপনা তৈরি করে। তবে শারীরিক ও মানসিকভাবেও কিছুটা চাপ তৈরি করে। লাল রঙ আমাদের স্নায়ুকোষকে উদীপ্ত করে। রক্তচাপ বৃদ্ধি করে। লাল রঙ অনেক সময় মনে রাগ, বিরক্তি বা অস্থিরতা এনে দেয়। তাই সবসময় লালের আনন্দ মনে প্রশান্তি আনে না। কমলা রঙও অনেকটা একই। সূর্যের আলোর খানিকটা কাছাকাছি রঙ হওয়াও ঘরের মধ্যে এই রঙের উপস্থিতি গরমের জানান দেয়। ঘরের ভেতর শান্তি আভাস পেতে রঙের বিন্যাস নিয়ে খানিকটা ভাবতে হবে আপনাকে।

 

বর্তমান সময়ে ঘরের ভেতর ভিন্ন আবহ তৈরির জন্য অনেকে কালো রঙ পছন্দ করে থাকেন। কালো রঙ তাপ শোষণকারী হওয়ায় এই রঙ ব্যবহারে রুমে গরম অনুভূত হয়। কালো রঙ শোক, নেতিবাচক, অসুখ, বিপদ, বিষণ্ণতা বুঝায়। তাই ঘরের মধ্যে কালো রঙের ব্যবহার পরিহার করা ভালো।

মানসিক সুস্থতা, শারীরিক সুস্থতার চেয়ে কোন অংশে কম নয়। আমরা স্বাভাবিকভাবেই মানসিক সুস্থতার চেয়ে শারীরিক সুস্থতাকে প্রাধান্য দিয়ে থাকি। ভুলে যাই একটিকে বাদ দিয়ে সামগ্রিক সুস্থতা কামনা করা কখনোই সম্ভব না।