Skip to content

৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | শুক্রবার | ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে যা করবেন

উচ্চ রক্তচাপ বা হাইপার টেনশন এই সময়ের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা। অতিরিক্ত ওজন, স্ট্রেস, অনিয়মিত ডায়েট এবং কম ওয়ার্ক আউট, সবকটিই উচ্চ রক্তচাপ বৃদ্ধির অন্যতম কারণ। একবার রক্তচাপ বাড়তে শুরু করলে তা নিয়ন্ত্রণে আনা বেশ মুশকিল। আর উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে না থাকলে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। ফলে স্ট্রোক ও হার্ট অ্যাটাকের মতো ঘটনা ঘটতে পারে।

 

একবার উচ্চ রক্তচাপ শনাক্ত হলে, তা নিয়ন্ত্রণে না আনলে পরে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা থাকাকালীন করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর সমস্যা আরও বেশি গুরুতর হতে পারে। যদিও রক্তচাপ কমাতে চিকিৎসকরা রোগীকে বিভিন্ন ওষুধ সেবনের পরামর্শ দেন। তাই এই সমস্যা থাকলে সতর্ক হন। নিয়মিত রক্তচাপ মেপে দেখুন। রক্তচাপ বেশি থাকলে তা নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করুন।

 

ঘরোয়া উপায়ে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে যা করবেন

সোডিয়াম খাওয়া কমিয়ে দিন

অতিরিক্ত সোডিয়াম গ্রহণে স্ট্রোকের কারণ হতে পারে। শুধু উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের জন্যই নয় বরং সুস্থ থাকতে সবারই উচিত লবণ যুক্ত প্রক্রিয়াজাত খাবার পরিহার করা। দিনে ২,৩০০ মিলিগ্রামের (মিলিগ্রাম) বেশি লবণ গ্রহণ করা উচিত নয়।

 

পটাসিয়ামের পরিমাণ বাড়ান

যারা উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন তাদের জন্য পটাসিয়াম অতি প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান। এই খনিজ উপাদানটি শরীরের জন্য খুবই উপকারী। শরীরে পর্যাপ্ত পটাসিয়াম থাকলে তা রক্তনালীর উপর চাপ কমায়। শরীরের অতিরিক্ত সোডিয়ামের পরিমাণ কমাতেও সাহায্য করে পটাসিয়াম। এজন্য খাদ্যতালিকায় পটাসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার যোগ করতে হবে। যেমন-

 

শাকসবজি- শাক, টমেটো, আলু ও মিষ্টি আলু।
ফল- তরমুজ, কলা, অ্যাভোকাডো, কমলা ও অ্যাপ্রিকট।
অন্যান্য- বাদাম ও বীজ, দুধ, দই, টুনা ও সালমন।

 

নিয়মিত ব্যায়াম করুন

নিয়মিত ব্যায়াম বা শরীরচর্চা করার বিকল্প নেই। সুস্থ থাকতে ও দীর্ঘস্থায়ী রোগের ঝুঁকি কমাতে প্রত্যেকেরই  উচিত নিয়মিত ৩০-৪৫ মিনিট ব্যায়াম করা। যারা উচ্চ রক্তচাপের সমস্যায় ভুগছেন তাদের জন্য এটি আরও বেশি প্রয়োজনীয়। নিয়মিত শরীরচর্চা করলে হৃদযন্ত্র ভালো থাকে। ফলে রক্ত প্রবাহ বাড়ে ও ধমনীর উপর চাপ কমে। এমনকি প্রতিদিন ৪০ মিনিট হাঁটলেও আপনি সুস্থ থাকবেন।

 

অ্যালকোহল ও ধূমপান ত্যাগ করুন

ধূমপান এবং অ্যালকোহল উভয়ই উচ্চ রক্তচাপ বাড়িয়ে দেয়। অ্যালকোহল ও নিকোটিন সাময়িকভাবে রক্তচাপের মাত্রা বাড়িয়ে রক্তনালীর ক্ষতি করতে পারে। যেহেতু  দুটি উপাদনই স্বাস্থ্যের ক্ষতি করে তাই এগুলো ত্যাগ করাই ভালো।

 

কার্বোহাইড্রেট কম খান

কার্বস ও চিনি উচ্চ রক্তচাপ বাড়ায়। তাই কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার রক্তচাপের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। রুটি ও সাদা চিনির মতো খাবার রক্তে শর্করার মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। এজন্য উচ্চ রক্তচাপের যারা ভুগছেন তারা অবশ্যই লো-কার্ব ডায়েট অনুসরণ করবেন। সাদা চিনি, ময়দাসহ বিভিন্ন প্রক্রিয়াজাতকরণ খাবার পরিহার করুন।

 

ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখুন

উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা হলে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা জরুরি। সেজন্য জেনে নিন আপনার বিএমআই এর মাত্রা। বয়স, উচ্চতাসহ আরও কিছু শারীরিক লক্ষণ অনুযায়ী আপনার ওজন কত হওয়া উত্তম তা চিকিৎসকের কাছ থেকে জেনে নিন। সেই ওজন ধরে রাখার চেষ্টা করুন। ওজন বেড়ে যাচ্ছে মনে হলেই তা কমানোর চেষ্টা করতে হবে।

 

মানসিক চাপ কমাতে হবে

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে চাইলে কমাতে হবে মানসিক চাপ। নিয়মিত মেডিটেশন এবং নিঃশ্বাসের ব্যায়াম করুন। যা কিছু আপনার উদ্বেগের কারণ হতে পারে সেসব এড়িয়ে চলুন। হতাশা আসতে দেওয়া যাবে না। সব সময় হাসিখুশি থাকার চেষ্টা করুন। যেসব কাজ করলে মন থাকে সেসব করার চেষ্টা করুন। শখের কাজ করতে পারেন। এতে দূর হবে উদ্বেগ।