Skip to content

২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | বৃহস্পতিবার | ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

খেজুরের হালুয়া

খেজুর স্বাস্থ্যের জন্য পুষ্টিকর খাবার। নিয়মিত খেজুর খাওয়ার ফলে আপনি থাকবেন রোগ-বালাই থেকে নিরাপদ সেই সাথে আপনার স্বাস্থ্যও থাকবে ভালো। এই খেজুর দিয়ে করা যায় অনেক পদের মিষ্টান্ন রান্নাবান্না। তার মধ্যে খেজুরের হালুয়া একটি। এটি করতে যেমন বেশি সময় এর প্রয়োজন হয় না তেমনি খুব দ্রুতই হয়ে যায় বানানো। এর স্বাদ যখন আপনি নিজে রান্না করে খাবেন তখন বুঝবেন। খেতে অসাধারণ হয়ে থাকে এবং যারা শরীরচর্চা করেন তাদের জন্য অনেক বেশি ভালো এই খেজুরের হালুয়া। তাহলে চলুন জেনে নেই, কিভাবে তৈরি করবেন এই খেজুরের হালুয়া। 

উপকরণ: 

 

১) খেজুর ৫০০ গ্রাম

২) গুঁড়া দুধ- ২ কাপ

৩) চিনি- আধা কাপ

৪) ঘি- ১ কাপ

৫) চীনা বাদাম গুঁড়া- ১ কাপ

৬) কাজু বাদাম গুঁড়া- ১ কাপ

৭) কাঠবাদাম গুঁড়া- ১ কাপ

৮) আস্ত কাজু, পেস্তা ও কাঠবাদাম সাজানোর জন্য।
৯) এক কাপ তরল দুধ

 

পদ্ধতি: 

খেজুর ভালো করে পানি দিয়ে ২/৩ বার ধুয়ে নিন।এতে করে খেজুরের গায়ে লেগে থাকা বালি চলে যাবে। এরপর খেজুর বিচি ফেলে দিয়ে দুধের ভিতর রেখে দিন এক থেকে দেড় ঘণ্টা। এতে করে খেজুর অনেকটা নরম হয়ে যাবে।ফলে ব্লেন্ডার করার সময় সহজেই সেটা ব্লেন্ড হয়ে যাবে। দুধ সহ খেজুর ব্লেন্ডার করে নিন। যে পাত্রে হালুয়া তৈরি করবেন সেটি চুলায় দিয়ে তাতে ঘি দিয়ে গরম হলে গুঁড়া দুধ বাদে বাকী সকল উপকরণ একে একে দিয়ে নাড়তে থাকুন।জ্বাল মিডিয়াম এ রেখে নাড়াচাড়া করবেন।নাহলে নিচে ধরে গেলে হালুয়ার স্বাদ টাই নষ্ট হয়ে যাবে। ১৫ মিনিট এই ভাবেই নাড়াচাড়া করার পর এর মধ্যে দিয়ে দিন গুঁড়া দুধ। একে বাড়েই না দিয়ে অল্প অল্প করে কয়েকবার দিন। আবার ৫ মিনিট নাড়ুন। যখন দেখবেন পাত্র থেকে হালুয়া পুড়োটাই ছেড়ে দিয়েছে তখন পরিবেশনের পাত্রে ঢেলে ফেলুন।

 

এর পর আস্ত বাদাম গুলো দিয়ে দিন সুন্দর করে সাজিয়ে হালুয়ার উপর। এবার ফ্যানের নিচে রেখে দিন ঠাণ্ডা হতে। ঠাণ্ডা হলে আপনার মন মতো সাইজে কেটে নিন পিস পিস করে। মজার এই স্বাস্থ্যকর খেজুরের হালুয়া ঘরের বাচ্চা থেকে শুরু করে সবাই খেতে পারবেন। খুবই সুস্বাদু খেতে এটি।