Skip to content

৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | শুক্রবার | ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

প্রেশার কুকার ব্যবহারে সতর্কতা

প্রেশার কুকার ব্যবহার করে না এমন মানুষ পাওয়া যায় না। প্রতিটা বাড়িতেই এখন প্রেশার কুকার ব্যবহার করা হয়। কিন্তু সতর্কতা অবলম্বন করা হয় তো ঠিকমতো?

 

প্রেশার কুকার নিয়ে বেশ কিছু ভয়াবহ দুর্ঘটনার পরিণতি দেখেছি। তাই এই জিনিস ব্যবহারে সাবধান হওয়া খুব জরুরি।

 

প্রতিবার ব্যবহারের পর প্রেশার কুকার ঠিকমত পরিষ্কার করলেই দুর্ঘটনা এড়ানো যায়।

 

শুধু প্রেশার কুকারের জন্যই হাতের কাছে একটা আলপিন/সেফটিপিন রেখে দিতে হবে। প্রতিবার ব্যবহারের পর যখন কুকার ধুবেন, আলপিন/সেফটিপিন দিয়ে ভালভের নিচের অংশটুকু যেটা ঢাকনির ভিতরের পাশে থাকে, তার ছিদ্রগুলো পরিষ্কার করে ফেলতে হবে। আর সেফটি ভালভটাও ভালোমতো পরিষ্কার করতে হবে।

 

কালো রাবারের ব্যান্ডটা অনেকদিন ব্যবহারে ঢিলা হয়ে যায়, সেক্ষেত্রে পাল্টে নিতে হবে।

 

 ভালভ, সেফটি ভালভ-ও আলাদা করে কিনতে পাওয়া যায়, যে কোনটি নষ্ট হয়ে গেলে সেটা পাল্টে নিতে হবে। নষ্ট জিনিস দিয়ে পণ্ডিতি করে রান্নার চেষ্টা না করাই নিরাপদ।

 

একটি দুর্ঘটনা মানুষের জীবন থেকে অনেক কিছু কেড়ে নেয় তাই সবসময় দুর্ঘটনা এড়িয়ে চলতে হবে।