Skip to content

১০ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ | বুধবার | ২৬শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলছে ১২ সেপ্টেম্বরে

করোনা ভয়াবহতায় গত বছরের ১৭ই মার্চ সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। বারবার করে সেই বন্ধের ছুটি বাড়তে বাড়তে দীর্ঘ ১৪ মাস ধরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিল। তবে এবারে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ সাপেক্ষে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে।  আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে উচ্চ মাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো খুলে দেওয়া হবে বলে জানায় শিক্ষামন্ত্রী। 

 

১২ সেপ্টেম্বর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হলে, হিসেব মত ছুটি আছে ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। নতুন করে ছুটি আর বাড়ছে না। গত ০২ সেপ্টেম্বর এক বৈঠকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার পক্ষে মতামত দেন করোনাসংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি। 

 

করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায় এতদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার বিষয় কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া যাচ্ছিলো না। তবে করোনার সংক্রমণ বর্তমানে প্রায় ৭০% পর্যন্ত কমে এসেছে। এমনকি ধীরে ধীরে টিকা প্রাপ্তিও নিশ্চিত হচ্ছে।  তাই সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে, সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন সাপেক্ষে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া যায়।  

 

এর আগে ২৬ আগস্ট শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক আয়োজিত এক সভায় পরিকল্পনা হয়,  টিকা নেওয়া সাপেক্ষে আগামী ১৫ অক্টোবর থেকে বিশ্ববিদ্যালয় গুলো খুলে দেওয়া হবে৷ তবে পরিস্থিতি বিবেচনায় এ সিদ্ধান্তের বদল হতে পারে৷ এই সময়  এগিয়েও আসতে পারে। ঐ তারিখে সংক্রমণ ৫-১০% হলে উচ্চ মাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত খোলার বিষয়ে মতামত চাইলে গতকালের বৈঠকে খোলার পক্ষে মত আসে। আগামী রোববার এ বিষয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা ডাকা হয়েছে।  

 

এদিকে গত ২৪ আগস্ট  জাতিসংঘ শিশু তহবিল বা ইউনিসেফের  প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে কোভিড-১৯–এর কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখায় বাংলাদেশের অবস্থান  বিশ্বের দ্বিতীয় দীর্ঘতম দেশ বলে জানানো হয়। দীর্ঘদিন বন্ধ রাখার ফলে প্রাক্‌-প্রাথমিক থেকে উচ্চশিক্ষা স্তর পর্যন্ত বাংলাদেশে প্রায় চার কোটির বেশি শিক্ষার্থী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

 

 

 

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ